About Me

header ads

রাজ্যের তিন শিক্ষককে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে নিযুক্ত করল রাজ্য সরকার!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ ত্রিপুরার তিনজন শিক্ষক এখন থেকে আর শিক্ষার্থীদের পড়াবেন না, তাঁরা মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেবের বাড়িতে, তাঁর আবাসিক কার্যালয়ে কাজ করবেন। রাজ্য সরকারের এমন সিদ্ধান্ত শুনে রাজ্যের শিক্ষিত ও সংবেদনশীল মহল অবাক! কারণ বিপ্লব দেবের আগে, রাজ্যের কোনও মুখ্যমন্ত্রীরই বাসস্থান বা আবাসিক কাজের জন্য স্কুল শিক্ষক রাখার প্রয়োজন ছিল না।

ওই তিন শিক্ষককে বলা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিবের কাছে রিপোর্ট করতে। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের মেয়ে আগরতলার শ্রীকৃষ্ণ মিশনের ছাত্রী। ছেলেও এই স্কুলেই পড়ত। অভিযোগ, মেয়ের প‌ড়াশোনার সুবিধে করে দিতেই বদলি করা হয়েছে তিনজন সরকারি শিক্ষককে।

৩০ সেপ্টেম্বর ওই তিন শিক্ষককে স্কুলের চাকরি থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়। আজ থেকে তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে কাজে যোগ দিয়েছিল। নোটিশটি জারি করেছেন শিক্ষা পরিচালক ইউ কে চাকমা।

আগরতলার ক্ষুদিরাম বসু ইংলিশ মিডিয়াম উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক অজিতা ত্রিপুরা, বিজয়কুমার বালিকা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞানের শিক্ষিকা সীমা সাহা এবং উদয়পুরের রমেশ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্নাতক শিক্ষক সুব্রত চক্রবর্তী আগরতলায় মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে কাজ শুরু করেছেন।

এদের মধ্যে সুব্রত চক্রবর্তী আবার ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির প্রধান মুখপাত্র ও রাজ্য কমিটির সদস্য। তাঁকে প্রায়ই বিজেপি দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন করতে দেখা যায়। নির্বাচনের মতো বিভিন্ন কাজের শিক্ষকদের নিয়োজিত হতে দেখা গিয়েছে। তাঁরা আদমশুমারিতেও অংশ নেন। কখনও কখনও শিক্ষা বিভাগের অফিসিয়াল কাজেও শিক্ষকদের নিয়োগ করা হয়। কিন্তু আগে কখনও কোনও শিক্ষকরা মুখ্যমন্ত্রীর আবাসিক দফতরে কোনও পদে ছিলেন কিনা- তা কেউ মনে করতে পারেনি।

ত্রিপুরায় কয়েক হাজার শিক্ষক চাকরি হারিয়েছেন এবং বিদ্যালয়ে শিক্ষকের ঘাটতি তৈরি হয়েছে। প্রচুর শিক্ষককে বদলি করা হচ্ছে। বিদ্যালয়গুলি শিক্ষক সংকটের মুখোমুখি হচ্ছে। এমন একটি সময়ে শিক্ষা বিভাগ স্কুলের বদলে মুখ্যমন্ত্রীরএর বাসভবনে শিক্ষক নিয়োগ করায় সকলে বিস্মিত!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য