About Me

header ads

কৃষক বিলের সমর্থনে বিজেপির ধন্যবাদ র‍্যালি!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ বুধবার ধর্মনগর বিজেপি মন্ডল কমিটি কৃষক বিল পাস করার জন্যে এক বিশাল থ্যাঙ্ক ইউ রেলি বা ধন্যবাদ সমাবেশ করেছে। ধর্মনগর বিবেকানন্দ সার্ধ শতবার্ষিকী স্টেডিয়াম থেকে শুরু হয়ে পুরো ধর্মমনগর মহকুমা জুড়ে হওয়া র‍্যালিতে হাজারেরও বেশি মানুষ অংশ নেন। উক্ত র‍্যালিতে হাজারেরও অধিক মানুষ অংশগ্রহণ করে। এটি শুরু হয়েছে বিবেকানন্দ সার্ধ শতবার্ষিকী ভবনের সামনে থেকে।

বিজেপি মণ্ডল কমিটির সদস্যরা কৃষক বিল পাস করার জন্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানিয়ে একে ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত আখ্যা দেন। বিজেপি সদস্যরা বলেন যে, বিরোধী সিপিআই-এম এবং কংগ্রেস তাদের নিজস্ব কারণে বিরোধিতা করছে এই আইনের। এই র‌্যালিটি কদমতলা মহকুমাতেও অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

ত্রিপুরার বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার বিশ্ববন্ধু সেন এ বিষয়ে বলেন, এ এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত। যা এক ভারত, এক কৃষি বাজার তৈরি করবে।

অন্যদিকে সারাদেশ জুড়ে কৃষকরা নতুন এই আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন। দীর্ঘদিন থেকেই আন্দোলন চলে আসছে। বর্তমান কেন্দ্রের বিজেপি সরকার কৃষকদের আন্দোলনকে পাত্তা দিতেই নারাজ। বিজেপির দাবী, ভারতের এক দেশ এক বাজার নীতি বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ অত্যন্ত জরুরি ছিল। বিরোধীরা প্রতিবাদ করবেই নিজেদের স্বার্থে! এই আইনের ফলে কৃষকরা আর কৃষি উৎপাদক বাজার কমিটির নিয়ন্ত্রণে থাকবেন না। পাশাপাশি, এর জেরে কৃষিক্ষেত্রে বিনিয়োগও বাড়বে। বিরোধীর মুখে চুনকালি মেখে এই বিল পাশ হওয়ায় কং-বাম আরো তেঁতে উঠেছে। কৃষকরাও বেশ কয়েকটি রাজ্যে কংগ্রেস, সিপিআই (এম) এবং অন্যান্য বিরোধী দলগুলির ডাকা প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন। তবে নরেন্দ্র মোদি দেশজুড়ে চলা তীব্র কৃষক বিক্ষোভের মধ্যেই সম্প্রতি কৃষি বিলের পক্ষে জোরালো সওয়াল করেছেন।

শুধু তাই নয়, যাঁরা কৃষি বিলের বিরোধিতা করছে, তাঁদের তীব্র ভাষায় ভর্ত্‍‌সনাও করেন তিনি। বললেন, 'কৃষি বিলের বিরোধিতা যাঁরা করছেন, তাঁরা কৃষকদের অপমান করছেন।'কেন্দ্রের সরকারের দাবি কৃষি আইনের হাত ধরে নতুন ধরনের কৃষি ব্যবস্থা সামনে আসবে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য