About Me

header ads

৭ দিনে রাজ্যে করোনা সংক্রমণে মৃত্যু ২৬ জনের, পজিটিভিটি রেট উদ্বেগজনক!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ উত্তর পূর্ব ভারতের ত্রিপুরায় গত সাত দিনে করোনা সংক্রমণে মারা গিয়েছেন ২৬ জন। তদুপরি, এই এক সপ্তাহে মোট ২১৪৬ জন ব্যক্তির দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

সবচেয়ে উদ্বেগজনক বিষয়টি হলো, গত সাত দিনে ত্রিপুরায় পজিটিভিটি রেট ১২ শতাংশেরও বেশি। সাত দিনে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে মোট ১৭৭২৫টি। এই টেস্টের মধ্যেই ২১৪৬ জনের পজিটিভ ফলাফল এসেছে। পজিটিভিটি রেট হলো ১২.১০ শতাংশ।

স্বাস্থ্য বিভাগ ৪ অক্টোবর একটি বুলেটিন জারি করে। যেখানে বলা হয়েছে ৪ অক্টোবর মোট ২১৭৩ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ৩২২ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। সুতরাং এক দিনে ইতিবাচক হার বা পজিটিভিটি রেট হচ্ছে ১৪.৮২ শতাংশ। যদিও রাজ্যের গড় করোনা পজিটিভিটি রেট বর্তমান ৬.৭৪ শতাংশ।

রবিবার নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯৬ হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যায় রাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগ একটি বুলেটিন জারি করে। সেখানে বলা হয়েছে যে ৪ অক্টোবর পর্যন্ত ত্রিপুরায় কোভিড সংক্রমণে ২৯৬ জন মারা গিয়েছেন।

রবিবার রাত পর্যন্ত ত্রিপুরায় করোনার পজিটিভ কেস ছিল ২৬৮৭৪ জন। এদিকে ২৭ সেপ্টেম্বর পজিটিভের সংখ্যাটা ২৪৭২৮ ছিল। রাজ্যে পজিটিভ কেসের সংখ্যা গত ৭ দিনে বেড়েছে ২১৪৬ এই সাত দিনে সংক্রামিত মানুষের গড় সংখ্যা ৩০৭।

এই সাত দিনে, রাজ্যে পজিটিভিটি হারও বেড়েছে। যেখানে ২৭ সেপ্টেম্বর পজিটিভিটি রেট ছিল ৬.৪৯%। বর্তমান তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬.৭৪ শতাংশে। রাজ্যে মৃত্যুহারও বেড়েছে খানিকটা। ২৭ সেপ্টেম্বর মৃত্যু হার ছিল ১.০৯ শতাংশ।বর্তমান এটি ১.১০ শতাংশ। এই সাত দিনে সুস্থতার হার বাড়েনি তা নয়। গতকাল সুস্থতার হার ছিল ৮১.৩৯ শতাংশ। যে হার ২৭ সেপ্টেম্বর ছিল ৭৬.৬৫ শতাংশ।

পাশাপাশি বেড়েছে টেস্টের সংখ্যাটাও। যা ইতিবাচক। রবিবার ত্রিপুরায় সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ৪৬৯৯ জন। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির সংখ্যা ২১৮৫৩ জন। রবিবার মোট ৪৬৬ জন ব্যক্তি করোনা সারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

এদিকে, গোটা দেশে দৈনিক সংক্রমণের তুলনায় দৈনিক সুস্থতার সংখ্যা বেশি সোমবার। কেন্দ্রের হিসেবে ভারতে সুস্থতার হার ৮৪.৩৪ %। অন্যদিকে মৃত্যুহার ১.৫৫%।  গত ২৪ ঘন্টায় মোট করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে মোট ৯,৮৯,৮৬০ টি। অন্যান্য দিনের তুলনায় সামান্য কম। তবে এই সংখ্যাকে ১৫ লক্ষে নিয়ে যাওয়ার পরকল্পনা রয়েছে সরকারের। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য