About Me

header ads

রাজ্যে বিএসএফ জওয়ান-ব্যবসায়ীর সংঘর্ষ, শূন্যে গুলি!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ একের পর এক ঘটনায় উত্তপ্ত উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্য ত্রিপুরা। মঙ্গলবার দুপুরে রাজ্যের সিপাহিজালা জেলার বক্সনগরের রহিমপুর মার্কেটে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী শূন্যে গুলিচালনা করে।
অভিযোগ, কলমচাউড়া থানার অন্তর্গত রহিমপুর বাজারে বিএসএফ এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্যে বিএসএফ ৩ রাউন্ড গুলি চালায় শূন্যে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে কাঁটাতারের বেড়ার কাছে ডিউটি করার জন্য আশাবাড়ি বিওপির ৭৪ ব্যাটালিয়নের বিএসএফ জওয়ান ছিলেন। জওয়ান এক পাচারকারীকে ধাওয়া করে রহিমপুর বাজারে আসেন। সেখানে জওয়ান এবং ওই বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে ঝগড়া হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
এদিকে, এমন অবস্থায় জওয়ান ঘটনাটি আশাবাড়ী বিওপিকে জানান। সেখান থেকে অন্যরা ছুটে যায় রহিমপুর বাজারে। জওয়ানরা বাজারে ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িত হয়ে পড়েন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। লোকজনও উত্তপ্ত হয়ে পড়ে। বাজারের দোকানীরাও ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিবাদ করতে থাকেন।
জানা গেছে, এই গরমাগরম পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্যে বিএসএফ জওয়ানরা তিন রাউন্ড গুলি চালনা করে। বিএসএফ গুলি চালালে বাজারের লোকজন ভয়ে পালিয়ে যায়। এরপরে, জওয়ানরা মার্কেট সেক্রেটারি কানু মিয়ার অনুমতি নিয়ে বাজারের কয়েকটি দোকান তল্লাশি চালায়। বাজারের ব্যবসায়ী জসিম মিয়ার দোকানে তল্লাশি চালিয়ে বিএসএফ জওয়ানরা দুধ, শিশুর খাবার, হরলিক্স, (এগুলোর মূল্য ৯০ হাজার টাকা) উদ্ধার করে বিওপিতে নিয়ে যায়।
বিএসএফ জানিয়েছে, বাংলাদেশে পাচারের উদ্দেশ্যে এই সমস্ত জিনিসপত্র দোকানে সংরক্ষণ করা হয়েছিল। পরে কলমচাউড়া থানার পুলিশ ঘটনাটি পুরো তদন্ত শুরু করে। বিএসএফের এমন ঘটনায় রহিমপুরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।
উল্লেখ্য যে, গ্রামবাসীরা গত এক মাসে কলমচৌড়া থানায় আশাবাড়ি বিওপি কোম্পানির কমান্ডারের বিরুদ্ধে চারটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য