About Me

header ads

রাজ্যের কোভিড কেয়ার সেন্টারে দুই নাবালিকার শ্লীলতাহানি!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ দেশের মেয়েরা কোথায় নিরাপদ? বাড়িতে-রাস্তায়, হাসপাতালে কোথাও নিরাপদ নয়! এমনকি চলমান করোনা পরিস্থিতিতে কোভিড কেয়ার সেন্টারেও বিকৃত মানসিকতাসম্পন্ন পুরুষদের কামনা থেকে নিষ্কৃতি পাচ্ছে না মেয়েরা। নিরাপদ নয় কোথাও মেয়ের জীবন!
ত্রিপুরার এক কোভিড কেয়ার সেন্টারে দুই অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে যৌন নির্যাতন করা হয়েছে। অভিযোগ অনুযায়ী, কোভিড কেয়ার সেন্টারে এক সাফাইকর্মী দুই মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। তাতে ব্যর্থ হয়ে কমবয়সী দুটো মেয়েকে যৌন নির্যাতন করেন অবশেষে।
এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, গোটা ভারতসহ ত্রিপুরার মহিলাদের সুরক্ষা কোথায়? শুক্রবার কোভিড কেয়ার সেন্টারের ভিতরে দুই কিশোরির ওপর এই যৌন নির্যাতন চালায় উক্ত ধর্ষক! ঘটনাটি ঘটেছে রাজ্যের কুমারঘাট PRTI কোভিড কেয়ার সেন্টারে। দুই কিশোরীর বয়স ১৫ এবং ১৬। তাঁরা কৈলাসহর এবং সৈয়দবাড়ির বাসিন্দা।
উল্লেখযোগ্য যে, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর তাঁরা গত কয়েকদিন ধরেই উক্ত কোভিড কেয়ার সেন্টারে ভর্তি ছিলেন।
জানা যাচ্ছে, প্রথম দিন থেকেই কোভিড কেয়ার সেন্টারের ঝন্টু দেব নামক এক পরিচ্ছন্ন কর্মী তাঁদের সঙ্গে অশ্লীল আচরণ করছিলেন। ১৫-১৬ বছরের দুই করোনা পজিটিভ কিশোরীকে খারাপ প্রস্তাব দেওয়ারও অভিযোগ ছিল সাফাইকর্মীর বিরুদ্ধে। এরপরই শুক্রবার সকালে তাঁদের ওপর যৌন হয়রানির গুরুতর অভিযোগ উঠেছে।
নির্যাতিতা দুই কিশোরী ধর্ষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তবে উক্ত ধর্ষককে এখনো পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়নি। এর আগেও দিল্লির ছতরপুরে দেশের বৃহত্তম কোভিড সেন্টারে এই কাণ্ড ঘটেছে। ১৪ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়েছে এই ১০ হাজার বেড বিশিষ্ট কোভিড সেন্টারে। অভিযুক্তও টিনএজার, ১৯ বছরের এক তরুণ।
কী ভয়ানক এই ঘটনা! রাজধানীর কোভিড কেয়ার সেন্টারে নিরাপত্তা দেয় ইন্দো-টিবেটান বর্ডার পুলিশ। কিন্তু এর মধ্য দিয়েও ১৫ জুলাই তারিখে এই নারকীয় ঘটনাটি সংঘটিত হলো কীভাবে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। উক্ত কোভিড পজিটিভ রোগী এবং দুই ধর্ষক কোভিড সেন্টারেই পরিচিয় হয়েছিল।
১৫ তারিখ মেয়েটিকে উক্ত কোভিড সেন্টারের মধ্যে একটি নিরিবিলি জায়গায় শৌচাগারে কাছে নিয়ে গিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করে। এই গোটা ঘটনা রেকর্ড করেছিল ধর্ষকের বন্ধু। পরপর এমন নারকীয় ঘটনাগুলো ঘটে যাচ্ছে হাসপাতালে। অথচ মেয়েদের সুরক্ষার জন্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সেই টালমাটাল করছে। দেশের মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করছেন একের পর এক ঘটে যাওয়া এই পাশবিক ঘটনাগুলোর বিরুদ্ধে!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য