About Me

header ads

উত্তর পূর্বাঞ্চলে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুহার ত্রিপুরায়!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ উত্তর পূর্ব ভারতের ত্রিপুরায় করোনা সংক্রমণে মৃত্যুর হার সবচাইতে বেশি! দিনে দিনে সংক্রমণে মৃতের সংখ্যাটা বেড়েই চলেছে। এই তালিকা প্রতিদিন দীর্ঘ হচ্ছে।
বুধবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য বিভাগের প্রকাশ করা বুলেটিনের তথ্য বলছে, বর্তমান রাজ্যে কোভিড-১৯ এর থাবায় ১২৫ জন ব্যক্তি মারা গেছেন। এই সংখ্যাটা গতকাল ছিল ১১৬। লাফিয়ে বাড়ছে প্রাণহানির সংখ্যা। এই ঘটনা অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছে সরকারকে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনে এটি স্পষ্ট যে, একদিনে মৃতের সংখ্যা বেড়েছে ৯ জন। বর্তমান রাজ্যে মৃত্যুর হার ০.৯৮ শতাংশ। উত্তর-পূর্বাঞ্চলে কোন রাজ্যে এত অধিক মৃত্যুর হার নেই। সামগ্রিক কোভিড পজিটিভিটি রেট ৪.৫৫ শতাংশে পৌঁছেছে ত্রিপুরায়।
রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যানুযায়ী, ১লা সেপ্টেম্বর থেকে ২রা সেপ্টেম্বর আজ পর্যন্ত মোট করোনার নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৫৯৬ টি। বুধবার ত্রিপুরায় কোভিড পজিটিভিটির হার ১২ শতাংশেরও বেশি।
উল্লেখযোগ্য যে, বর্তমান গোটা রাজ্যে মোট ১২৭২২ জনের দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। সক্রিয় রোগীর সংখ্যা রাজ্যে ৪৫৪১ জন। অন্যদিকে, এদিন মারণ করোনাকে জয় করে মোট ১৮ জন হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন।
উত্তর পূর্বাঞ্চলের আরেক রাজ্য অসমে বর্তমান মোট করোনাক্রান্ত রোগীর সংখ্যা পৌঁছেছে ১,১১,৭২৪ জনে। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩১৫ জনে। বর্তমান রাজ্যে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২৪,৫১৪ জন। গোটা দেশের সামগ্রিক কোভিড পরিস্থিতি বর্তমান সুস্থির আছে বলা যাবে না। কারণ দু-একদিনে ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা যে ৭০ হাজারের নিচে নেমে এসেছিল, সেই সংখ্যাই বুধবার ৭৮ হাজার পার করে গেছে। তবে সুস্থও হয়ে উঠছেন মানুষ।
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুযায়ী, ভারতে গত ২৪ ঘন্টায় সংক্রামিত হয়েছেন ৭৮,৩৫৭ জন। করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ১০৪৫ জনের। তবে মারাত্মক করোনাকে অনেক বয়োজ্যেষ্ট ব্যক্তিরাও জয় করে ফেলছেন। এই সুস্থতার সংখ্যাটা যথেষ্ট স্বস্তি দিচ্ছে। জনগণ-সরকারের প্রচেষ্টায় খুব শীঘ্রই ভারত করোনাকাল কাটিয়ে উঠতে পারবে বলে আশা করা হচ্ছে। ২৪ ঘন্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৬২,০২৬ জন। ভারতে বর্তমান সুস্থতার হার ৭৬.৭৮ শতাংশ। অন্যদিকে মৃত্যুহার ১.৭৬ শতাংশ।
গোটা বিশ্বের কোভিড পরিসংখ্যানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যার নিরিখে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। ভারতের আগেই রয়েছে আমেরিকা এবং ব্রাজিল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য