About Me

header ads

রাজ্যের সংবাদমাধ্যমকে হুমকির বিষয়ে স্পষ্টীকরণ দিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ সম্প্রতি সাব্রুমে SEZ-এর শিলান্যাস অনুষ্ঠানে সংবাদ মাধ্যমকে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর এক বক্তব্যকে কেন্দ্র করে বিতর্ক দেখা দেয়। মুখ্যমন্ত্রীর দাবী যে তার সেই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে একাংশ মহল অপপ্রচার শুরু করে দিয়েছে, যদিও রাজ্য ও জাতীয় মিডিয়ায় সেই দিনের মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে ক্ষোভ ব্যাক্ত করা হয়েছে এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও মুখ্যমন্ত্রীর সেই বক্তব্য ভাইরাল এবং সুস্পষ্ট। এই পরিস্থিতিতে সাব্রুমে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে স্পষ্টীকরণ দিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।
মুখ্যমন্ত্রী জানান রাজ্যের ৩৭ লক্ষ্য বাসিন্দার প্রতি ওনার মূল দায়িত্ব। তার মধ্যে সাংবাদিক রয়েছে, ডাক্তার রয়েছে, কৃষক রয়েছে, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব রয়েছে। সকলের প্রতি ওনার দায়িত্ব রয়েছে। সাব্রুমের তিনি সকলকে নয়, এক দুইটি সংবাদ মাধ্যম যারা মানুষকে বিভ্রান্ত করছে, তাদের কে বলেছেন তারা যেন মানুষকে বিভ্রান্ত না করে। সঠিক বিষয়টি সামনে আসার জন্য। মানুষকে বিভ্রান্ত করা হলে মানুষ ভয়ে হাসপাতালে আসতে চায় না। পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে হোম আইসোলেশনে রয়েছে, কিন্তু খুবই খারাপ অবস্থা। ভয়ে হাসপাতালে আসছে না। পরবর্তী সময় শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আনা হচ্ছে। এতে করে প্রানহানি ঘটছে। বাড়ি বাড়ি যখন স্বাস্থ্য কর্মীদের পাঠানো হয়েছে, তখনও অনেকে সঠিক ভাবে সাহায্য করেনি। অনেক জায়গায় স্বাস্থ্য কর্মীদের বাধাও দেওয়া হয়েছে। গোমতী জেলার তিন জন রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসার সময় এ্যাম্বুলেন্সে মারা গেছে। যদি এই সকল রোগীরা ভয় না পেত, সময়মত হাসপাতালে চলে আসতো তাহলে তাদের প্রান হারাতে হতো না। সংবাদ মাধ্যমের দায়িত্ব রয়েছে মানুষকে সচেতন করার। সরকারের ভুল ত্রুটি ধরিয়ে দেওয়া সংবাদ মাধ্যমের দায়িত্ব।
মুখ্যমন্ত্রী এইদিন স্পষ্ট করে জানান তিনি সেই দিন বলতে চেয়েছেন ত্রিপুরার মানুষের সামনে বিভ্রান্তকর তথ্য পরিবেশন করা হলে একজন অভিভাবক হিসাবে কোন ভাবেই তা মাপ করতে পারেন না। তিনি আরও বলেন রাজ্যের সকল অংশের মানুষের প্রতি ওনার দায়িত্ব রয়েছে। প্রথম যে দিন জিবি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গিয়েছিল সেই দিন রাজ্যের মানুষ যথেষ্ট ভয় পেয়ে গিয়েছিল। তখন কেউ ভয়ে জিবি হাসপাতালে যেতে চাইতো না। মানুষকে সাহস যোগানোর জন্য তখন তিনি জিবি হাসপাতালে ছুটে যান। দীর্ঘ দুই ঘন্টা সময় তিনি সেখানে কাটান। তিনি আরও বলেন ত্রিপুরার মানুষের মানসিক শক্তি অনেক বেশি। যারা ত্রিপুরার মানুষের মানসিক শক্তি খর্ব করার চেষ্টা করবে তাদের কি করে তিনি মাপ করবেন। এই কথাই তিনি সেই দিন বলতে চেয়ে ছিলেন। তার বাইরে আর কোন কিছু নয়।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে তার সেই দিনের বক্তব্যকে কেউ যদি ভুল বুঝে থাকে, তবে তাঁকে ভালো ভাবে একবার দেখা উচিত। মুখ্যমন্ত্রী এইদিন স্পষ্ট করে বলেন সাব্রুমে তিনি যে কথা বলেছেন তা কাউকে দুঃখ দেওয়া কিংবা কাউকে অপমান করার জন্য বলেন নি। মানুষ যেন বিভ্রান্ত না হয়, তা তিনি বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। তিনি এইদিন ফের একবার সংবাদ মাধ্যমকে স্বাধীন ভাবে সত্য সংবাদ মানুষের সামনে তুলে ধরার আহ্বান জানান। সরকার সংবাদ মাধ্যম ও সাংবাদিকদের প্রতি আন্তরিক বলেও জানান তিনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য