About Me

header ads

রাজ্যের সংবাদমাধ্যমকে মুখ্যমন্ত্রীর হুমকির তীব্র নিন্দা প্রকাশ প্রদেশ কংগ্রেসের!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ সম্প্রতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে দেখে নেওয়ার মে হুমকি দিয়েছেন। তা গোটা দেশে নজিরবিহীন ঘটনা। রবিবার প্রদেশ কংগ্রেস ভবনে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর ধরনের হুমকি অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস কমিটি পক্ষ থেকে সম্পাদক ভুপেন বরো তীব্র নিন্দা জানান। তিনি বলেন, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ সংবাদমাধ্যম।
আর এটা সম্পন্ন স্বাধীন মাধ্যম। সমাজকে সঠিক দিশা দেখায়। সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে মুখ্যমন্ত্রীর এ ধরনের মন্তব্য মোটেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে জানান তিনি। করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের অমানবিক ভূমিকা ও স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা, রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করা, রাজ্যের চিটফান্ডের শিকার সাধারণ মানুষের অর্থ ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করা এবং করোনায় মৃত পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা মিটিয়ে দেওয়া, বিভিন্ন দপ্তরে অনিয়মিত কর্মীদের নিয়মিত করা সহ ৯ দফা দাবিতে ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস কমিটি আগামী ২১ সেপ্টেম্বর ত্রিপুরা বনধ -এর ডাক দিয়েছে। ১২ ঘন্টা বনধ পালন করা হবে। জরুরী পরিষেবা বনধ -এর আওতার বাইরে থাকবে। সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই জানান প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পীযূষ কান্তি বিশ্বাস।
তিনি বলেন, রাজ্যের বর্তমান বেহাল স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং সরকারে অমানবিক দিকগুলো সম্পর্কে জাতীয় কংগ্রেস দলের নেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে অবগত করা হয়েছে। দেশের মানুষ আড়াই বছরের বিজেপি এবং আইপিএফটি জোট সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চাইছে। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে বিনা চিকিৎসায় মারা হচ্ছে। যা একপ্রকার খুন বলে অভিযোগ তোলেন তিনি। কেন্দ্র থেকে অর্থ এনে রাজ্যের লুট চলছে বলে জানান তিনি।রোগীদের কাছে খাবার পৌঁছাতে রোগীর পরিজনদের মোটা অংক দিতে হচ্ছে সেখানকার কর্মীদের। গোটা জিবি মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেন তিনি।
রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির বেহাল অবস্থা চিত্র সংবাদ মাধ্যমে সামনে আসার পর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী গত ১০ সেপ্টেম্বর দক্ষিণ জেলায় ইকোনমিক জোনের শিলান্যাস অনুষ্ঠান গিয়ে বলেন যারা সংবাদ-মাধ্যমে মাধ্যমকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভের উপর এ ধরনের আক্রমণকে কেন্দ্র করে তীব্র নিন্দার ঝড় বইছে। এবং এমনকি প্রদেশ যুব কংগ্রেসের পক্ষ থেকে রবিবার কংগ্রেস ভবনের সম্মুখে প্রাক্তন প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী মূর্তির পাদদেশে বসে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়। উপস্থিত ছিলেন অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস কমিটি সম্পাদক ভুপেন বরো, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পীযূষ বিশ্বাস, প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি গোপাল রায় এবং বীরজিৎ সিনহা, প্রদেশ যুব কংগ্রেস সভাপতি পুজন বিশ্বাস সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য