About Me

header ads

ধারালো অস্ত্র দিয়ে মেয়ে ও তার মাকে আক্রমণ এক ব্যাক্তির!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ মধ্য বয়স্কা মহিলাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আক্রমণ করলেন তাঁরই মেয়ের শ্বশুরমশাই! মর্মান্তিক এই ঘটনাটি সংঘটিত হয়েছে ধর্মনগরে মঙ্গলবার বিকেলে। আহতের নাম বাসন্তী নাথ! মেয়ের নাম গৌরী নাথ! তাঁর স্বামী বিশ্বজিৎ নাথ পুণেতে অবস্থান করেন চাকুরিসূত্রে। তাঁদের একটি সন্তানও আছে।

ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত শ্বশুর বীরেন্দ্র নাথ বাসন্তীকে আচমকা নৃশংসভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আক্রমণ করে আঘাতপ্রাপ্ত করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় বাসন্তী দেবীকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।

জানা গেছে, এর আগে তাঁরা কদমতলা ব্লকের সরসপুরে বাস করতেন তবে কয়েক মাস আগে তাঁরা গঙ্গানগরে চলে আসেন। এবং এখানেই বসবাস করা শুরু করেন।

খবর অনুযায়ী, বাসন্তী নাথ নিজেরই চিকিৎসার জন্যে গত ১৫ দিন ধরে মেয়েদের বাড়িতে থাকছিলেন। কোন কথা নেই বার্তা নেই আচমকা মেয়ের শ্বশুর বিকেলে মাতাল অবস্থায় বাড়ি আসেন হাতে কতগুলো মরিচের গুঁড়ো নিয়ে। আশ্চর্যজনকভাবে বাড়িতে ঢুকেই বৌমা গৌরী নাথ এবং বাসন্তী দেবীর চোখেমুখে সেই লঙ্কা গুঁড়ো ছেটানো শুরু করেন। এদিন তিনি মাতাল অবস্থায় ছিলেন। গৌরীর পাশাপাশি বাসন্তী নাথের উপর মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়েই তীক্ষ্ণ-ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাসন্তীর উপর আক্রমণ করেন। আচমকা এই আক্রমণে নির্বাক হয়ে পড়েন মা-মেয়ে দুজনেই। মায়ের উপর হামলা দেখেই গৌরী ও তাঁর মেয়ে একরকমভাবে বাড়ি থেকে পালিয়ে বাগপাসা থানায় খবর দেন।

ঘটনার খবর পেয়েই পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিশ্বজিৎ নাথকে ঘটনাস্থল থেকে গ্রেপ্তার করে। আহতকে ধর্মনগর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। সেখানেই তাঁর চিকিৎসা চলছে। পুলিশ মামলাটি আরও তদন্ত করছে। এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে। বাসন্তী নাথের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে। তবে তিনি ধর্মনগর জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য