About Me

header ads

ঘরোয়া সহিংসতার মামলা রাজ্যের উপ-আইন সচিব শঙ্খ শুভ্রের বিরুদ্ধে!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ ত্রিপুরার উপ-আইন সচিবের বিরুদ্ধে এবার স্বয়ং স্ত্রী পারিবারিক সহিংসতার মামলা দায়ের করেছেন। মহেশ্বতা দেবী ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলার চিফ জুডিশিয়াল মেজিস্ট্রেট আদালতে স্বামী শঙ্খ শুভ্র দত্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। মহেশ্বতাদেবীর আইনজীবী রঘুনাথ মুখোপাধ্যায় এ তথ্য জানিয়ে বলেন, ত্রিপুরা সরকারের উপ-আইন সচিব শঙ্খ শুভ্র দত্তসহ শ্বশুর, শাশুড়ির বিরুদ্ধেও মহেশ্বতা দত্ত আদালতে মামলা করেছেন।

মহেশ্বতা দেবী একজন আত্মনির্ভর এবং শিক্ষিত নারী। আইনজীবী রঘুনাথ মুখার্জি তাঁর হয়ে লড়ছেন। রঘুনাথ মুখোপাধ্যায় বলেন, মহেশ্বতা দেবীর ওপর ভয়াবহ মানসিক নির্যাতন চালাতেন শঙ্খ শুভ্র দত্ত! মুখার্জিবাবুর কথায় জানা যাচ্ছে, মহেশ্বতা দত্ত এবং শঙ্খ শুভ্র দত্তের বিয়ে হয় ২০১৫ সালে। সে সময় শঙ্খ শুভ্র আইনজীবী ছিলেন এবং ত্রিপুরায় অনুশীলন করতেন। এর পরের বছর তিনি আইন বিভাগে উপ-আইন সচিব হিসেবে সরকারি চাকুরিতে যোগদান করে ফেলেন। চাকুরি পাওয়ার পর থেকেই স্ত্রীর উপর শুরু হয় মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন। এরপর ২০১৬ সাল থেকেই স্বামী-স্ত্রী একই বাড়িতে ভিন্ন বসবাস করা শুরু করেন।

জানা যাচ্ছে, শঙ্খ শুভ্র প্রায় ১৫-২০ দিন এসে থাকতেন অসমের গুয়াহাটিতে। স্ব-নির্ভর একজন নারী, তিনি কেন প্রতিবাদ করবেন না? শ্বশুর-শাশুড়ি মিলে মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন। মহেশ্বতা এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করেছিলেন।

স্ত্রী মহেশ্বতা উপর স্বামীর মানসিক নির্যাতনের মাত্রাটা দিনে দিনে বেড়ে যাচ্ছিল! শঙ্খ মহেশ্বতা শোবার ঘরে সিসিটিভি ক্যামেরা ফিট করে রেখেছিলেন স্ত্রীকে নজরদারিতে রাখার জন্যে! ভয়ংকর অভিযোগ উঠেছে সচিবের বিরুদ্ধে!  দেড় বছর আগে একদিন হঠাৎই মহেশ্বতা দত্ত দেখতে পান যে তাঁর শোবার ঘরে ক্যামেরা বসানো হয়েছে। তৎক্ষণাৎ তিনি স্বামীকে এর কারণ কী জানতে চান! শঙ্খর উত্তর ছিল, এটি সুরক্ষার খাতিরে বসানো হয়েছে। এরপর ড্রয়িং রুমে আরও একটি সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়।

রঘুনাথ মুখোপাধ্যায় বলেন, এটি এক ধরনের মানসিক নির্যাতন। প্রত্যেক মানুষের নিজস্ব গোপনীয়তা আছে। এবং যে ব্যক্তি আইন সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন এবং উপ-আইন সচিবের মতো একটি পদে বহাল রয়েছেন, তিনিই কিনা স্ত্রীর সঙ্গে এমন পুরুষতান্ত্রিক আচরণ করছেন?

আইনজীবী আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেন, উচ্চ সমাজেও নারী যে সহিংসতার শিকার, মহেশ্বতা তার উদাহরণ। স্ব-শিক্ষিত, আত্মনির্ভর এবং সাহসী নারীর প্রয়োজন আছে এই পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ভাঙার জন্যে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য