About Me

header ads

রাজ্যে গর্ভবতী স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারল নরপিশাচ স্বামী!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ ভয়ংকর স্বামী। কমল ঋষিদাস নামক এক ব্যক্তি তাঁর তিন মাসের গর্ভবতী স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন।
ঘটনাটি ঘটেছে ত্রিপুরার গোমতি জেলার উদয়পুরে। পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী কমল হৃষিদাসকে গ্রেপ্তার করেছে। জানা যাচ্ছে,, কমল নামক এই ব্যক্তি মাতাবাড়ি কলোনী এলাকার একজন গুণ্ডা হিসেবেই পরিচিত। স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেছেন, তিনি প্রায়ই তাঁর স্ত্রীর উপর নির্যাতন করতেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রতিনিধিরা স্ত্রীর উপর নির্যাতন না করার জন্য কমলকে বেশ কয়েকবার সতর্ক করা হয়েছিল। কিন্তু কোন কথা তাঁর কানে ঢোকেনি।
বৃহস্পতিবার একইভাবে দুপুরবেলা স্ত্রী সুমিত্রা দাসকে মারধর শুরু করেন কমল। স্থানীয়রা আটকানোর চেষ্টাও করেছিলেন, কিন্তু একপর্যায়ে হিংস্রতার মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। টয়লেটে বন্দী করে, স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেন পাষণ্ড স্বামী।
নিহত গৃহবধূর বাবার বাড়ির পক্ষ থেকে উদয়পুর মহিলা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহতের দুই নিরীহ পুত্র মায়ের মৃত্যুর সাক্ষী একমাত্র! স্থানীয়দের চেষ্টায় গৃহবধূকে গোমতী জেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এদিকে, গর্ভবতী স্ত্রীর গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যান কমল।
ঘটনার কথা শুনেই গৃহবধূর পরিবারের সদস্যরা কাকরবান থেকে গোমতী জেলা হাসপাতালে ছুটে যান। তাঁর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাঁকে শীঘ্রই আগরতলার জিবিপি হাসপাতালে রেফার করা হয়। কিন্তু বাঁচানো গেল না তাঁকে আর।
শুক্রবার ভোর চারটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুমিত্রা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ময়নাতদন্ত আজ করা হয়েছে, এবং দেখা গেছে তিনি ৩ মাসের গর্ভবতী ছিলেন। কমল একজন পুরুষতান্ত্রিক চরিত্রের। যিনি বিয়ের সময় যৌতুক নিয়েছিলেন সোনাদানা। সম্প্রতি তিনি বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। শনিবার আরকেপুর থানা পুলিশ কমল হৃষি দাসকে গ্রেপ্তার করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য