About Me

header ads

রাজ্যে চালু হল বিদ্যুৎ দপ্তরে প্রিপেইড মিটার পরিষেবা!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ বিদ্যুৎ বিলের বকেয়ার রুখতে রাজ্য সরকারের আরও এক অভিনব উদ্যোগ। রবিবার বড়দোয়ালীস্থিত বিদ্যুৎ অফিসে রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী তথা বিদ্যুৎ মন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মা প্রিপেইড মিটারের শুভ উদ্বোধন করেন। মিটার উদ্বোধনের পর মন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মা জানান, রাজ্যের সরকার গঠন করার পর থেকে প্রিপেইড মিটার চালু করার প্রচেষ্টা ছিল।
রবিবার তা বাস্তবায়িত হয়েছে। ১ লক্ষ ৮৪ হাজার প্রিপেইড মিটার আপাতত ক্রয় করা হয়েছে। সমস্ত রাজ্যেই চালু হবে এই অত্যাধুনিক পরিষেবা। রিচার্জ কার্ড দ্বারা বাড়ি বিদ্যুৎ পরিষেবা রিচার্জ করতে হবে গ্রাহককে। আর রবিবার পর্যন্ত এক লক্ষ প্রিপেইড মিটার ইনস্টল করা হয়েছে। এর ফলে বিদ্যুৎ চুরি কম হবে। বিল দিতে গ্রাহককে অফিসে যেতে হবে না। অথাৎ পরিষেবা অনেকটা উন্নত হবে। সরকার চাইছে পরিষেবা উন্নত করে বিদ্যুৎ নিগমকে লাভজনক দিকে নিয়ে যেতে।আগামী দিনে মোবাইলের মাধ্যমে যাতে গ্রাহকরা রিচার্জ করতে পারে সে জন্য রাজ্য সরকার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এর মূল কথা মানুষকে ভালো পরিষেবা প্রদান করা। আর এ ধরনের পদক্ষেপে বিদ্যুৎ বিল নিয়ে দপ্তরের প্রতি গ্রাহকদের কোন ধরনের অভিযোগ থাকবে না বলে অভিমত ব্যক্ত করেন শ্রী দেববর্মা।
তবে এ ধরনের প্রিপেইড মিটার চালু হওয়াতে বেকায়দায় পড়তে চলেছে রাজ্যের বহু বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। কারণ বিগত দিনের লক্ষ্য করা যেত বহু গ্রাহক আর্থিক অভাব-অনটনের কারণে দু-তিন মাস বিদ্যুৎ বিল দপ্তরের কাছে জমা দিতে পারত না। পরবর্তী সময় একসাথে দুই তিন মাসের বিল প্রদান করতেন। আর একবার যদি কোন গ্রাহকের রিচার্জ শেষ হয়ে যায়, গ্রাহক আর্থিক অভাব অনটনের জন্য রিচার্জ করতে না পারে তাহলে গ্রাহকের বাড়ির বিদ্যুৎ পরিষেবা সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে যাবে। পূর্বে কোনো গ্রাহকের কয়েক মাসে বিদ্যুৎ বিল জমা পড়ে গেলে গ্রাহককে বিদ্যুৎ বিল প্রদান করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হতো দপ্তর থেকে। কিন্তু বর্তমানে সরকারের এ ধরনের পদক্ষেপ অর্থাৎ প্রিপেইড মিটার চালু করার সিদ্ধান্তের ফলে বহু গাহক প্রতিমাসে যেমন বিদ্যুৎ পরিষেবার জন্য রিচার্জ করা অসাধ্যকর হয়ে পড়বে, ঠিক তেমনি মাসে একবার রিচার্জ শেষ হয়ে গেলে পুনরায় রিচার্জ করার সামর্থ্য নাও থাকতে পারে যা হাতের কাছে। এতে অন্ধকারে ডুবে যাবে গ্রাহকের বাড়ি। কারণ রিচার্জ শেষ হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে বিদ্যুৎ পরিষেবা ডিসকানেক্ট হয়ে যাবে। সুতরাং এখন আর নিগমের কোনরকম বিদ্যুৎ বিল জমা করতে পারবে না কোন গ্রাহক। যা আরেকবার রাজ্যবাসী কাছে হাসির খোরাক হলো সরকার।
সরকার বলছে, প্রতি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পরিষেবা প্রদান করতে সরকার যথেষ্ঠ সহানুভূতিশীল। আর এদিকে প্রিপেইড মিটার চালু করে গ্রাহকদের নতুন আশঙ্কায় ফেলে দিয়েছে সরকার বলে অভিমত অভিজ্ঞ মহলের। এই পরিষেবা কোন গ্রাহক চাইলে ২ হাজার ৫০০ ইউনিট তথা ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত রিচার্জ করতে পারবে। এবং কোন গ্রাহক যদি রিচার্জের পর কোন কারণ বশত বাড়ির বিদ্যুৎ ব্যবহার না করে। তাহলে পরবর্তী সময় মিটার চার্জে দিতে হবে গ্রাহককে। এবং পূর্বে রিচার্জ করার টাকার বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে পারবে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দপ্তরের অধিকর্তা এমএস কেলে সহ দপ্তরের আধিকারিকরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য