About Me

header ads

রাজ্যে চিকিৎসকের গাফিলতির ফলে মৃত্যু এক গর্ভবতী গৃহবধূর!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ চিকিৎসকের গাফিলতির ফলে মৃত্যু হল এক গর্ভবতী গৃহবধূর। ঘটনা খোয়াই সুভাষ পার্ক কালিবাড়ি এলাকায়। মৃত গৃহবধূর নাম মৌসুমী দাস। বয়স ১৯ বছর। মৃতার পরিবারের অভিযোগ চিকিৎসকের গাফিলতির কারণে মৃত্যু হয়েছে এই গর্ভবতী মহিলার।
২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে খোয়াই সুভাষ পার্ক কালিবাড়ি এলাকার বাসিন্দা চাকুরিচ্যুত 10,323 শিক্ষক অভিজিৎ ঘোষের সাথে সামাজিক ভাবে মৌসুমী দাসের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর মৌসুমী অন্তঃসত্ত্বা হয়। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর প্রতিমাসে নিয়মিত ভাবে খোয়াই জেলা হাসপাতালে কর্মরত প্রসূতি ও স্ত্রী  রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেবাশীষ সাহার তত্ত্বাবধানে মৌসুমির চিকিৎসা চলতে থাকে। নয় মাস অতিক্রান্ত হওয়ার পর মৌসুমির শরীরে দেখা দেয় বিভিন্ন উপসর্গ। এই বিষয়ে মৌসুমীর স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন ডাক্তার দেবাশীষ সাহার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি সনোগ্রাফি করার পরামর্শ দেন এবং রিপোর্ট সহ মৌসুমিকে নিয়ে খোয়াই জেলা হাসপাতলে আসার পরামর্শ দেন।
বুধবার মৌসুমীর স্বামী অভিজিৎ ঘোষ ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে মৌসুমিকে নিয়ে খোয়াই জেলা হাসপাতালে যান। বুধবার জেলা হাসপাতালে মৌসুমীর সিজার হওয়ার কথা। কিন্তু ডাক্তার দেবাশীষ সাহা সোনোগ্রাফি রিপোর্ট দেখার পর মৌসুমিকে তড়িঘড়ি আগরতলা জিবি হাসপাতালে স্থানান্তর করে দেন।
সন্ধ্যায় আগরতলা জিবি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় মৌসুমিকে। তখন প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট অনুভব করে মৌসুমি। অবশেষে গভীর রাতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে মৌসুমী। মৃতার পরিবারের অভিযোগ জিবি হাসপাতালেও সঠিক চিকিৎসা পরিষেবা পায়নি মৌসুমী। জিবি হাসপাতালে মৌসুমিকে আই.সি.ইউ-র পরিষেবা যদি দেওয়া হত তাহলে মৌসুমী প্রাণে বেঁচে যেত বলেও পরিবারের লোকজনদের দাবি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য