About Me

header ads

গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে জেলা ও মহকুমা প্রশাসনকে কড়া নির্দেশ রাজ্য সরকারের!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে কঠোরভাবে লকডাউন কার্যকর করতে নির্দেশ জারি করেছে ত্রিপুরা সরকার৷ আগামী ৫ জুলাই সম্পূর্ণ লকডাউনের ঘোষণা করেছে রাজ্য৷ তাছাড়া, জুলাইতে যাতে গোষ্ঠী সংক্রমণ ছড়িয়ে না পড়ে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে৷ নয়তো জেলা প্রশাসন এবং মহকুমা প্রশাসনকে তার দায় নিতে হবে৷ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ত্রিপুরার মুখ্যসচিব মনোজ কুমার সমস্ত জেলাশাসককে এ-বিষয়ে অবগত করে সতর্ক থাকতে বলেছেন৷
এ-বিষয়ে বৃহস্পতিবার সিপাহিজলার জেলাশাসক সিকে জমাতিয়া বলেন, যে কোনও মূল্যে গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে হবে৷ সমস্ত জেলাশাসককে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ আগামী ৫ জুলাই সম্পূর্ণ লকডাউন কঠোরভাবে পালন করতে হবে৷ তাই, ৪ জুলাই পর্যন্ত সমগ্র জেলায় জনসচেতনতা গড়ে তোলা হবে৷ তাঁর কথায়, মহকুমাশাসকদের আগামী ৫ জুলাই লকডাউন ১০০ শতাংশ সফল করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে৷ এছাড়া জেলা এবং মহকুমা স্তরে নজরদারি নিশ্চিত করতে হবে সংশ্লিষ্টদের৷
সিপাহিজলার জেলাশাসক বলেন, সকলের কাছে আবেদন জানানো হচ্ছে, অপ্রয়োজনে বাড়ি থেকে বের হবেন না৷ বাড়িঘরে ব্যবহৃত জিনিসপত্র এখনই কিনে রাখুন৷ ফলে ৫ জুলাই বাড়ি থেকে বের হওয়ার প্রয়োজন পড়বে না৷ তাঁর সাফ কথা, রবিবার লকডাউন চলাকালীন আইন ভঙ্গকারীদের জরিমানা করা হবে৷ প্রয়োজনে আটক করা হতে পারে৷ তিনি বলেন, করোনা-র প্রকোপে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় ধাপের মুখোমুখি হচ্ছি আমরা৷ সতর্কতা অবলম্বন না হলে বিপদ মারাত্মক আকার ধারণ করবে৷
তিনি বলেন, ত্রিপুরা সরকার সমস্ত জেলাশাসক এবং জেলা পুলিশ সুপারদের বার্তা দিয়েছে, রাজ্যে গোষ্ঠী সংক্রমণ হলে জেলা প্রশাসনকে দায় নিতে হবে৷ তেমনি, জেলা প্রশাসন থেকে মহকুমাশাসক এবং মহকুমা স্বাস্থ্য আধিকারিকদেরও সাফ জানানো হয়েছে, রাজ্যে গোষ্ঠী সংক্রমণ হলে আপনারাই দায়ী থাকবেন৷ ত্রিপুরা সরকারের এই কড়া বার্তায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশাসনে দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে৷

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য