About Me

header ads

গৃহবধুর রহস্য মৃত্যু, হত্যার অভিযোগে থানায় মামলা!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ গৃহবধূ হত্যাকাণ্ডে নতুন মোড় সংঘটিত হয়। অবশেষে ধর্মনগর জেলা হাসপাতালে ময়নাতদন্ত না হওয়ায় আগরতলাতে ময়না তদন্ত করে  মৃতদেহ নিয়ে গতকাল রাতে মৃতার পরিজনরা কদমতলা থানায় আসেন। বর্তমানে তারা উপযুক্ত বিচারের আশায় প্রশাসনের দিকে তাকিয়ে রয়েছে।
এদিকে, এই ঘটনার বিবরণে জানা যায়, চলতি মাসের ১লা জুলাই ইচাই লালছড়াস্থিত শ্বশুরবাড়িতে রুসনা বেগম(২৩) নামে এক তরুণ গৃহবধূ অস্বাভাবিক ভাবে মৃত্যু হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে তার স্বামী চেরাগ মিয়া ও তার বড় ভাই জয়নাল আবেদীন ধর্মনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায় মৃত গৃহবধূকে।
খবর পেয়ে মৃত গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকজনেরা হাসপাতালে ছুটে যান। সেখানে মৃত অবস্থায় রুসনাকে দেখেই বধূ হত্যার অভিযোগ তুলেন স্বামী ও তার বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে। আর এখানে গৃহবধূ রুসনা খুন হওয়ার পেছনে মূল কারণ ছিল তার স্বামী বর্তমানে পাঁচ সন্তানের এক জননীকে বিবাহ করার জন্য কোট মেরেজ করেন। আর তাতেই চরম অশান্তির দানা বাঁধে তাদের সংসারে। তাই সঙ্গে সঙ্গে মৃতার বাড়ির লোকজনরা কদমতলা থানায় এসে ওই দুই ব্যক্তির নামে মামলা দায়ের করেন। কদমতলা থানার ওসি কৃষ্ণধন সরকার মামলা হাতে পেয়েই অভিযুক্ত দুজনকে পাকড়াও করে থানায় নিয়ে আসেন। অবশ্য পরদিনই দুই আসামিকে আদালতে চারদিনের রিমান্ড চেয়ে থানায় নিয়ে আসেন। বর্তমানে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।
এদিকে, গতকাল রাতে মৃতদেহ ও ময়নাতদন্তের পর  নিয়ে মৃতার পরিজনরা আগরতলা থেকে কদমতলা থানায় এসে পৌঁছান।গতকাল গুরুতর অভিযোগ তুলেন মৃতার কাকা আব্দুল হক। তিনি ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনেকটা তাদের অনুকূলে বলে জানান। তাছাড়া তারা আগেই অভিযোগ তুলেন বালিশ চাপা দিয়ে তাদের মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে বলে। তাই তারা প্রশাসনের কাছে আসামি দুজনের ফাঁসির আবেদন জানান। এখন দেখার বিষয়  আইনি প্রক্রিয়ায় মৃত গৃহবধূর আত্মা কতটুকু শান্তি পায়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য