About Me

header ads

কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশিকা মেনেই কাজ করছে রাজ্য সরকারঃ মন্ত্রী রতন লাল নাথ।


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ এখনো পর্যন্ত ত্রিপুরা রাজ্যে যতগুলি স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়েছে তারমধ্যে আগে চারটি নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। নতুন করে আরও ১২ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। মোট ১৬ টি কেইস পজেটিভ পাওয়া গেছে। তার মধ্যে দুইজন সুস্থ হয়ে হাঁসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে গেছে। বাকি রয়েছে ১৪ জন। তাদের চিকিৎসা চলছে। এই ১৪ জনের বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সিম্পটমস নেই।
বি.এস.এফ-এর যে দুই জন জওয়ানের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে, তাদের সাথে লিঙ্ক রয়েছে এমন ৩৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল রবিবার। এই ৩৪ জনের মধ্যে ১২ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। তাদেরকে রবিবারই আমবাসাস্থিত জওহরনগর বি.এস.এফ ১৩৮ নং বাহিনীর ক্যাম্পে পৃথক করে রাখা হয়েছে।
সোমবার তাদের চিকিৎসার জন্য জিবি হাসপাতালে স্থানান্তর করার কথা রয়েছে। করোনা চিকিৎসা তিন ধরনের রয়েছে। ডেডিকেটেড কোভিড হাঁসপাতাল জিবি। ডেডিকেটেড কোভিড হেলথ সেন্টার আই.জি.এম এবং ডেডিকেটেড কোভিড কেয়ার সেন্টার রয়েছে। নতুন করে করোনা আক্রান্ত ১২ জন বি.এস.এফ জওয়ানদের এইদিন জিবি হাসপাতালে নিয়ে আসা হবে।
এছাড়াও প্রথম করোনা আক্রান্ত দুই বি.এস.এফ জওয়ানের সাথে লিঙ্ক রয়েছে এমন ১৭৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করে আনা হয়েছে। সেই নমুনা পরীক্ষার কাজ চলছে। বিকালের মধ্যে রিপোর্ট জানা যাবে। এছাড়াও নতুন করে করোনা আক্রান্ত ১২ জনের সাথে লিঙ্ক রয়েছে এমন লোকদের নামের তালিকা তৈরি করার কাজ চলছে। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বলতে গিয়ে এই তথ্য জানান মন্ত্রী রতন লাল নাথ। তিনি আরও জানান স্বাস্থ্য কর্মীরা জীবনের ঝুকি নিয়ে কাজ করছে। প্রশাসন যা যা করার করছে। রবিবারই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছেন। সেখান থেকে দেওয়া নির্দেশ অনুসারে যা যা করার তা করা হচ্ছে।
বিলেতি মদের দোকান গুলিতে ক্রেতাদের দীর্ঘ লাইন নতুন করে রাজ্যে বিপদ ডেকে আনবে না তো? এই বিষয়ে মন্ত্রী রতন লাল নাথকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন কেন্দ্রীয় সরকার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলে বিলেতি মদের দোকান খোলা থাকবে। কেন্দ্রীয় সরকার বন্ধ থাকবে বললে বন্ধ থাকবে। ত্রিপুরা দেশের বাইরে নয়। কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশিকা মেনে রাজ্য সরকার নতুন কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলে বলতে পারবে। বিলেতি মদের দোকান খোলা থাকলে ভালো না খারাপ তা বলতে পারবে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় সরকার যা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে বিশেষজ্ঞদের সাথে আলোচনা করে সেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য