About Me

header ads

মানুষের হাতে নগদ না দিলে বিপর্যয় সুনিশ্চিত: রাহুল গান্ধী

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ ঋণ নয়, গরিব ও পরিযায়ী শ্রমিকদের হাতে নগদ দিক কেন্দ্র। শনিবার এই দাবি তুললেন কংগ্রেস সাংসদ রাহল গান্ধী। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় মোদি সরকার ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। এই প্যাকেজ পুর্বিবেচনার পক্ষেও সওয়াল করেন রাহুল গান্ধী।
এদিন ভিডিও বৈঠকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, খিদে পেটে মানুষ সরকারের কাছে ঋণ চায় না। সাহায্য চায়। এই পরিস্থিতিতে সরকারের উচিৎ মা-বাবার মতো পরিযায়ী শ্রমিক এবং গরিবদের সাহায্য করা। আমি চাই, সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করতে। আমার সরকারের কাছে অনুরোধ, আর্থিক প্যাকেজ পুনর্বিন্যাস করে সাধারণ মানুষকে সরাসরি সাহায্য করুন। তাঁর যুক্তি, বাজারে চাহিদা বাড়াতে হবে। চাহিদা বাড়াতে সাধারণ মানুষের হাতে টাকা তুলে দেওয়াটাই একমাত্র উপায়।


করোনার জেরে দেশের অর্থনীতি নিম্নমুখী। এ প্রসঙ্গে কংগ্রেস সাংসদ বলেছেন, এখনও ঝড় পুরোপুরি আসেনি। তবে সেটি আসছে, আর একবার এসে পড়লে বহু মানুষকে আঘাত করবে। অর্থনীতি বড় ধাক্কা খাবে। রবিবারই তৃতীয় পর্যায়ের লকডাউনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। চুর্থ পর্যায়ের লকডাউনে ইঙ্গিত আগেই দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এই অবস্থায় শুধু অর্থনীতির কথা ভেবে স্বাস্থ্যের সঙ্গে আপো, করা যাবে না বলে মনে করেন রাহুল গান্ধী। পরিকল্পনা করে ক্রমপর্যায়ে লকডাউন শিথিলের উপর জোর দেন তিনি।
করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় গত বুধবার ২০ লক্ষ কোটির আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিন দফায় তার বিশদ ব্যাখ্যা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প থেকে পরিয়ায়ী শ্রমিক, কৃষি ক্ষেত্রে প্য়াকেজ কিভাবে সহায়তা করবে তা বলা হয়েছে। কিন্তু, এতে কোথাউ গরীবদের হাতে নগদ দেওয়ার কথা বলা নেই। আর মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই সরব কংগ্রেস সাংসদ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য