About Me

header ads

১৮ মে থেকে দেশের চতুর্থ লকডাউন, আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা মোদির!

ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ করোনা মোকাবিলায় দেশে চতুর্থ লকডাউন চলবে। রাজ্য গুলোর সঙ্গে কথা বলে চতুর্থ লকডাউনের নিয়মাবলী জানানো হবে। ১৮ মের আগে তা জানানো হবে বলে জাতির উদ্দেশে ভাষণে বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
করোনায় বিশেষ আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করলেন মোদী। প্রধানমন্ত্রী বললেন, এই আর্থিক প্যাকেজ আত্মনির্ভর ভারতের কাজ করবে। ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ। দেশের জিডিপির প্রায় ১০ শতাংশ এই প্যাকেজ। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য প্যাকেজ। সংগঠিত, অসংগঠিত সব শ্রেণির মানুষের জন্য এই প্যাকেজ। জমি, শ্রম, নগদের জোগানের জন্য এই প্যাকেজ। অর্থমন্ত্রী আগামিকাল বিস্তারিত জানাবেন এ ব্যাপারে
এদিন জাতির উদ্দেশে ভাষণে মোদী বললেন, করোনায় অনেক ভারতীয় তাঁদের স্বজনকে হারিয়েছেন। তাঁদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। একটা ভাইরাস দুনিয়াকে তছনছ করে দিয়েছে। মোদী আরও বললেন, ভাইরাস থেকে নিজেদেরকে বাঁচিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। এমন সংকট আগে দেখিনি আমরা। এই সংকট থেকে আমাদের মুক্তি পেতেই হবে। নিয়ম মেনে এই ভাইরাসের কবল থেকে আমাদের রক্ষা করতে হবে। করোনা পরিস্থিতি ভারতকে আত্মনির্ভর হতে শেখাচ্ছে। আমাদের সংকল্প আত্মনির্ভর ভারত
করোনা আবহে গত ১৯ মার্চ প্রথম বার জাতীর উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছিলেন মোদী। সেবারের ভাষণে দেশজুড়ে জনতা কার্ফুর ডাক দিয়েছিলেন। গত ২২ মার্চ দেশজুড়ে জনতা কার্ফু পালিত হয়েছিল। ওইদিন বিকেল ৫টায় জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যাঁরা যুক্ত রয়েছেন তাঁদের স্যালুট জানাতে ঘণ্টা বাজানো/হাতহালি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন মোদী।
গত ৩ এপ্রিল এক ভিডিও বার্তায় 'বাতি জ্বালাও' কর্মসূচির ডাক দিয়েছিলেন। মোদীর ডাকে সাড়া দিয়ে গত ৫ এপ্রিল রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য বাড়ির আলো নিভিয়ে মোমবাতি জ্বেলে, মোবাইলের ফ্ল্যাশ লাইট জ্বেলে কিংবা টর্চের আলো জেলে শামিল হয়েছিল গোটা দেশ। এরপর গত ১৪ এপ্রিল দ্বিতীয় দফার লকডাউনের ঘোষণা করেছিলেন মোদী।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য