About Me

header ads

গ্রামীন স্তর পর্যন্ত করোনা মনিটরিং এওয়ারনেস কমিটি গঠনের পরিকল্পনা!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ সোমবার থেকে শুরু হয়েছে চতুর্থ দফার লকডাউন। ৩১ মে পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকার লকডাউন ঘোষণা করেছে। বেশ কিছু ক্ষেত্রে শিথিলতা দেওয়া হয়েছে। তবে স্কুল,কলেজ,বিশ্ববিদ্যালয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শপিং মল, সিনেমা হল এগুলি বন্ধ রাখা হয়েছে। রাজ্যে কোন কোন ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হবে বা কোন কোন ক্ষেত্রে বন্ধ রাখা হবে এই বিষয়ে সহসাই জানানো হবে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মন্ত্রিসভার সদস্যদের সাথে বৈঠক করবেন। তারপরই এই বিষয়ে জানানো হবে। তবে এই মহামারীর বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে লড়াই করতে হবে। দলমত নির্বিশেষে লড়াই করতে হবে।
স্টেট লেভেল থেকে পঞ্চায়েত লেভেল পর্যন্ত করোণা মনিটরিং এওয়ারনেস কমিটির ঘোষণা দিতে পারেন  মুখ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে প্রশাসনিক পর্যায়ে এই কমিটি গঠন করা হবে। প্রচুর সংখ্যক মানুষ বহিরাজ্য থেকে রাজ্যে আসছে। তারা যেন সঠিকভাবে হোম কোয়ারেন্টাইন পালন করে, তার উপর নজর রাখবে এই কমিটি। প্রশাসনের পাশাপাশি এই কমিটি একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
এই মহামারী থেকে বাঁচার একটাই রাস্তা, অপ্রয়োজনে বাড়ি থেকে বের না হওয়া। বহি রাজ্য থেকে যারা এসেছে তাদের অবশ্যই ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে পরিবারের সকলকে নিয়ে। যাতে করে কোন ভাবেই এই রোগ ছড়াতে না পারে।  চতুর্থ দফায় লকডাউন শুরু হওয়ার পর নিজের প্রতিক্রিয়ায় এমনটা জানান আইনমন্ত্রী রতন লাল নাথ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ