About Me

header ads

উচ্চমাধ্যমিক ও মাধ্যমিকের অসমাপ্ত পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ করোনা সংক্রমণের কারনে মাঝ পথে বন্ধ করে দিতে হয়েছিল ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ পরিচালিত ২০২০ সালের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। কেন্দ্রীয় নির্দেশিকা মেনে এই সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। লক ডাউনের চতুর্থ দফায় একাধিক ক্ষেত্রে এসেছে শিথিলতা। নতুন করে দেওয়া হয়েছে নির্দেশিকা।
তারপরই ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ পরিচালিত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের অবশিষ্ট পরীক্ষা গুলি গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার মহাকরণে সাংবাদিক সম্মেলন করে অবশিষ্ট পরীক্ষার সময় সুচি ঘোষণা করেন শিক্ষা মন্ত্রী রতন লাল নাথ।
আগামি ৫ জুন থেকে শুরু হবে উচ্চ মাধ্যমিকের অবশিষ্ট পরীক্ষা। ৬ জুন থেকে শুরু হবে মাধ্যমিকের অবশিষ্ট পরীক্ষা। নয়া সুচি অনুযায়ী ৫ জুন নেওয়া হবে উচ্চ মাধ্যমিক সংস্কৃত ও স্ট্যাটিস্টিকস পরীক্ষা। দুপুর ১২ টা থেকে শুরু হবে পরীক্ষা। চলবে বিকাল ৩ টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত। অনুরুপ ভাবে ৬ জুন হবে অর্থনীতির বিষয়ে পরীক্ষা। ৮ জুন হবে মনোবিদ্যা, ৯ জুন এরাবিক ও মিউজিক, ১০ জুন ভূগোল, ১১ জুন হবে হোম ম্যানেজমেন্ট ও হোম নার্সিং ও নিউট্রেশান বিষয়ের পরীক্ষা।
অন্যদিকে মাদ্রাসা ফাজিল আর্টস-এ ৬ জুন অনুষ্ঠিত হবে অর্থনীতি ও ৯ জুন অনুষ্ঠিত হবে এরাবিক বিষয়ের পরীক্ষা। এই দুইটি বিষয়ে পরীক্ষা দেবে ২৮ জন। মাদ্রাসা ফাজিল থিওলজি ৯ জুন হবে এরাবিক পরীক্ষা। মোট পরীক্ষার্থী ২৮ জন। অন্যদিকে মাধ্যমিকের ওল্ড সিলেবাস ওল্ড প্যাটার্নে মাদ্রাসা আলিম ৫ জুন হবে পিজিকেল সাইন্স, ৬ জুন হবে লাইফ সাইন্স, ৮ জুন হবে তফসির পরীক্ষা। ৯ জুন হবে হাদিথ পরীক্ষা।
মাদ্রাসা আলিম নিউ সিলেবাস নিউ প্যাটার্নের ৬ জুন অনুষ্ঠিত হবে এরাবিক, ৮ জুন অনুষ্ঠিত হবে তপসির, ৯ জুন অনুষ্ঠিত হবে হাদিথ পরীক্ষা। অবশিষ্ট পরীক্ষা গুলিতে উচ্চ মাধ্যমিকের পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৮ হাজার ৭৪৯ জন। অন্যদিকে মাধ্যমিকের পুরানো সিলেবাসে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা  ৩০৯ জন। উচ্চ মাধ্যমিকের পরীক্ষা কেন্দ্র রেড জোনে রয়েছে ১ টি। এই বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৩৫ জন। সকলে অর্থনীতি বিষয়ের পরীক্ষার্থী। এই পরীক্ষা কেন্দ্রটি স্থানান্তর করে করা হয়েছে আমবাসা চন্দ্রাইপাড়া বিদ্যালয়ে। সেই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ৪৯ জন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য