About Me

header ads

জুন মাসের মধ্যেই বিদেশে আটকে পড়া রাজ্যের নাগরিকদের নিয়ে আসা হবে!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ চেন্নাই থেকে সোমবার একটি ট্রেন রাজ্যে এসে পৌঁছেছে। ৩৩৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১ জন মহিলা হাই রিস্ক বা পজেটিভ রোগীর সংস্পর্শে ছিল। আই.বি রিপোর্ট অনুযায়ী এই তথ্য পাওয়া যায়। তাই এই মহিলাকে সিপার্ডে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে সেই বগিতে থাকা ৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এইদিকে বেঙ্গালুর থেকে আরও একটি ট্রেন রাজ্যে এসে পৌঁছেছে। আগরতলা স্টেশনে ৮৫৫ জন নামে। ধর্মনগরে নামে ৫৯২ জন। আগরতলা স্টেশনে ১৬৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ১ জনকে জিবিতে স্থানান্তর করা হয়েছে। ট্রেনের মধ্যে আঘাত পাওয়ার দরুন তার মাথা ফেটে যায়। সেই কারনে জিবি স্থানান্তর করা হয়েছে তাকে।
সোমবার মহাকরণে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই তথ্য জানান আইন মন্ত্রী রতন লাল নাথ। তিনি আরও জানান ত্রিপুরা রাজ্যে এখনো পর্যন্ত মোট পর্যবেক্ষণে রয়েছে ১৭ হাজার ১৬০ জন। ১৪ দিনের সময়সীমা সম্পন্ন করেছে ১৩ হাজার ৭০৫ জন। বর্তমানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৩০১ জন। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৩ হাজার ১৫৪ জন। এখনো পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৪ হাজার ৬৩৫ জনের। নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৪ হাজার ২৮৬ জনের। রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে ১৬৭ জনের। নেগেটিভ এসেছে ১৪ হাজার ১১৯ জনের। সোমবার চোরাইবাড়ি দিয়ে ৩৫৯ জন রাজ্যে প্রবেশ করেছে। তার মধ্যে ১২৬ জন ট্র্যাক চালক, রোগী ১১ জন, সাধারন মানুষ ২২২ জন। দামছড়া দিয়ে রাজ্যে এসেছে ৭ জন। ৩৭২ টি যান বাহন এইদিন চোরাইবাড়ি দিয়ে রাজ্যে প্রবেশ করেছে। তার মধ্যে হটস্পট এলাকা থেকে এসেছে ৫০ টি যান বাহন। দামছড়া দিয়ে ৬ টি যানবাহন রাজ্যে প্রবেশ করেছে এইদিন। এইদিন ৭৭৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ৬০০ নমুনা পরীক্ষা চলছে বর্তমানে। ৩৫০ টি নমুনা পরীক্ষা হয়ে গেছে। সবকয়টির রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।
এইদিন করোনা আক্রান্ত ৩ জনকে সুস্থ হয়ে যাওয়ার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ২ জনকে ছাড়া হয়েছে জিবি হাঁসপাতাল থেকে। ১ জনকে ছাড়া হয়েছে বি.এস.এফ হাঁসপাতাল থেকে। আগামিকাল আরও ২৭ জনকে ছেড়ে দেওয়া হতে পারে। বর্তমানে তাদের শারীরিক অবস্থা ভালো ও স্থিতিশীল রয়েছে। যে কেন্দ্রীয় দলটি রাজ্যে এসেছে সেই দলটি সোমবার কমলপুর সফর করে। মঙ্গলবার গণ্ডাছড়ার করিনা বি.ও.পি-তে যাবে কেন্দ্রীয় দলটি।
এইদিকে ১৬২ জন রাজ্যের নাগরিক বিদেশ থেকে ফেরার জন্য আবেদন জানিয়েছে। বিভিন্ন দেশে বর্তমানে রয়েছেন তারা। বাংলাদেশে থাকা ৮৩ জনকে সড়ক পথে আখাউরা দিয়ে আনার ক্ষেত্রে বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। অন্যদিকে মন্ত্রী রতন লাল নাথ জানান জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে সবকিছু ঠিক থাকলে মস্কো ও কিপ্ট থেকে দুইটি বিমান গৌহাটি পৌঁছাবে। সেই বিমানে করে বহিঃরাষ্ট্রে আটকে পড়া বেশকয়েকজন রাজ্যের বাসিন্দা ফিরতে পারেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ