About Me

header ads

ডেপুটেশনে সাড়া না দেওয়ায় শিক্ষা ভবন ঘেরাও করলো ১০,৩২৩ শিক্ষক সংগঠন!


ডেস্কও ওয়েব ডেস্কঃ শিক্ষা ভবন ঘেরাও কর্মসূচি চাকুরিচ্যুত ১০,৩২৩ শিক্ষক-শিক্ষিকাদের। মঙ্গলবার রাজধানীর অফিসলেনস্থিত শিক্ষা ভবন ঘেরাও করে এই শিক্ষক-শিক্ষিকারা।
ঘটনার বিবরণে জানা যায় ১২ দিন পূর্বে ১০,৩২৩ শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পক্ষ থেকে চার দফা দাবিকে সামনে রেখে ডাইরেক্টর অফ সেকেন্ডারি এডুকেশন ইউ.কে চাকমার নিকট ডেপুটেশন প্রদান করা হয়। ডেপুটেশন প্রদানকালে ৭ দিনের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়। আমরা ১০,৩২৩ শিক্ষক সংগঠন ও ১০,৩২৩ এডহক পে শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে এই ডেপুটেশন প্রদান করা হয়
অভিযোগ ডেপুটেশন প্রদানকালে বেঁধে দেওয়া সাত দিনের সময়সীমা অতিক্রান্ত হয়ে যাওয়ার পরও দপ্তর থেকে কোন ধরনের সদুত্তর পাওয়া যায়নি। তাই ১২ দিনের মাথায় মঙ্গলবার এই দুটি শিক্ষক সংগঠনের শিক্ষক-শিক্ষিকারা দপ্তরের অধিকর্তার সাথে দেখা করতে আসে। কিন্তু এইদিন দপ্তরের অধিকর্তা ইউ.কে চাকমা এই শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সাথে দেখা করতে অসম্মতি প্রকাশ করে। তখন এই শিক্ষক-শিক্ষিকারা শিক্ষা ভবন ঘেরাও কর্মসূচিতে শামিল হয়।
শিক্ষা ভবন ঘেরাওর খবর পেয়ে ছুটে আসে বিশাল পুলিশবাহিনী। সদর মহকুমার ভারপ্রাপ্ত মহাকুমা পুলিশ আধিকারিক ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। তিনি শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সাথে কথা বলে শিক্ষা ভবন ঘেরাও কর্মসূচি প্রত্যাহারের আবেদন জানান। কিন্তু এই শিক্ষক-শিক্ষিকারা তাদের দাবিতে অনড় থাকে। চাকরীচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকারা দাবি জানায় দফতরের অধিকর্তা যতক্ষণ না পর্যন্ত তাদের সাথে দেখা করবে ততক্ষণ পর্যন্ত তারা শিক্ষা ভবন ঘেরাও করে রাখবে। চাকুরিচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকারা এদিন একটা সময় পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তিতে লিপ্ত হয়ে পড়ে। যদিও পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।
১০,৩২৩ এডহক পে শিক্ষক সংগঠনের সভাপতি বিমলেন্দু সাহা জানান এখনো পর্যন্ত তারা দপ্তর থেকে কোন ধরনের টার্মিনেশন লেটার পাননি। ফলে কারা চাকুরিচ্যুত হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এই চাকরিচ্যুত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ৩৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা প্রদানের ঘোষণা দেন। কিন্তু দপ্তর থেকে এই ৩৫ হাজার টাকা প্রদানের ক্ষেত্রে শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এইসকল বিষয় নিয়ে দপ্তরের অধিকর্তার নিকট ডেপুটেশন প্রদান করা হয়।
সেই বিষয়ে কথা বলার জন্য এদিন দপ্তরে আসেন তারা। কিন্তু দফতরের অধিকর্তা কথা বলতে অসম্মতি প্রকাশ করেন। তাই তারা বাধ্য হয়ে শিক্ষা ভবন ঘেরাও কর্মসূচিতে শামিল হয়েছেন। দফতরের অধিকর্তা তাদের সাথে এসে কথা না বললে তারা শিক্ষা ভবন ঘেরাও কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলেও জানান তিনি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ