About Me

header ads

প্রচুর পরিমাণে মজুত বাজি ও ফেন্সিডিল বাজেয়াপ্ত করলো এন্টি নার্কোটিক্স শাখা!

নেশা বিরোধী অভিযান ধারাবাহিক ভাবে চালিয়ে যাচ্ছে আরক্ষা প্রশাসন। প্রতিদিন রাজ্যের কোথাও না কোথা থেকে উদ্ধার হচ্ছে নেশা সামগ্রী। নেশা কারবারী ও পাচারকারীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করে সাফল্য পাচ্ছে পুলিশ। কিন্তু নেশার এই সাম্রাজ্যের শেষ কোথায় তা এখনো বুঝে উঠতে পারছেন না আরক্ষা কর্মীরা।

সোমবার গোপন খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বের বড় সড় সাফল্য পেল এন্টি নার্কোটিক্স শাখা। এদিন নার্কোটিক্স শাখার ডিএস পি তরুণ দেববর্মার নেতৃত্বে প্রথম অভিযান চালানো হয় এ ডি নগর থানার অন্তর্গত সিদ্ধি আশ্রম এলাকায়। সেখানের একটি গো ডাউন থেকে প্রচুর পরিমাণে মজুত করা বাজি ও ফেন্সিডিলের বোতল বাজেয়াপ্ত করে এন্টি নার্কোটিক্স শাখা। বাজি গুলি তুলে দেওয়া হয় এ ডি নগর পুলিসের হাতে। এই অভিযানে দুজনকে আটক করা হয়। আটক দুই জনের মধ্যে একজন গোডাউনের ম্যানেজার ও অপর জন মালিক। মালিকের নাম পৃথ্বীশ দেব , বারি বোধজং নগর থানা এলাকার খয়েরপুরে। অপরদিকে আটক ম্যানেজারের নাম সঞ্জীব ভৌমিক, বারি নতুন পল্লী , কৃষ্ণনগর। এই অভিযানে এন্টি নার্কোটিক্স শাখা প্রায় ১৫ হাজার ফেন্সিডিলের বোতল উদ্ধার করে।

এদিকে এদিন দ্বিতীয় অভিযান চালানো হয় রামঠাকুর কলেজ সংলগ্ন আরো দুটি গো ডাউনে। সেই গোডাউনে গিয়ে এন্টি নার্কোটিক্স শাখার দলটি প্রথম দিকে কিছু পায়নি। পরে গোডাউন সংলগ্ন একটি ঘর ঘিরে তাদের সন্দেহ হয়। এর চাবি চাইলে না পেয়ে সিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু তারা জানতে পারে এই গোডাউনের মালিক পূর্বের গোডাউনের মালিক পৃথ্বীশ দেবই। আটক করা ম্যানেজার সঞ্জীব ভৌমিককে চাপ দিতেই সে এই ঘড়ের চাবি বের করে দেয়। সেই গো ডাউন থেকে উদ্ধার হয় ৭৪ হাজার ২৪০ বোতল এস্কাফ।

জানা গেছে এদিন দুটি অভিযানে প্রায় ২৩ লক্ষ টাকার কফসিরাপ উদ্ধার করেছে এন্টি নার্কোটিক্স শাখা।

Post a Comment

0 Comments