About Me

header ads

মনমোহন এখন শুধুই জেড প্লাস, এসপিজি নিরাপত্তা কাড়ল শাহর মন্ত্রক!

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-এর নিরাপত্তা থেকে স্পেশাল প্রোটেকশান গ্রুপকে (এসপিজি) প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এবার থেকে কেবলমাত্র ‘জেড প্লাস’ নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যেই থাকবেন দেশের এই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী। অমিত শাহর মন্ত্রকের তরফে সোমবার জানানো হল, তিন মাস ধরে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ক্যাবিনেট সেক্রেটারিয়েট এবং মন্ত্রকের মূল্যায়নের পরেই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। মনমোহনকে এসপিজি সুরক্ষা থেকে বাদ দেওয়ার পর দেশের এই সর্বোচ্চ সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে রইলেন কেবল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং গান্ধী পরিবারের তিন সদস্য- সোনিয়া, রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে সোমবার জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “নিরাপত্তা সংস্থাগুলির দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমিকভাবে এবং পেশাদারি দক্ষতার সঙ্গে বিচার করে বর্তমান নিরাপত্তা ব্যবস্থা পুনর্মূল্যায়িত হয়েছে। ডঃ মনমোহন সিং এবার থেকে জেড প্লাস মানের নিরাপত্তা পাবেন”। উল্লেখ্য, এসপিজি নিরাপত্তা বেষ্টনীর পর ‘জেড প্লাস’ মানই ভারত সরকার কর্তৃক প্রদত্ত সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বলয়।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৮ সালের এসপিজি আইন অনুযায়ী, ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর এক বছর পর্যন্ত মনমোহন সিং-এর এসপিজি নিরাপত্তা পাওয়ার বৈধতা ছিল। এরপর থেকে ডঃ মনমোহন সিং এবং তাঁর স্ত্রী গুরশরণ কৌরের নিরপত্তাজনিত ঝুঁকির দিক বিবেচনা করে বাৎসরিকভাবে এসপিজি নিরাপত্তা পুনর্নবীকরণ করা হয়েছে। তবে ২০১৪ সালে মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর মনমোহনের কন্যা স্বেচ্ছায় এসপিজি নিরাপত্তা বলয় ত্যাগ করেছিলেন।

উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালে রাজীব গান্ধীর হত্যাকাণ্ডের পর এসপিজি আইন সংশোধন করা হয়। এই সংশোধনীতে বলা হয়, দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও তাঁদের পরিবারকে ১০ বছর এসপিজি নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে রাখা হবে। পরবর্তীকালে অটলবিহারী বাজপেয়ীর সরকার আবার এসপিজি-র কার্যকারিতা বিচার করে তিন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর (পি ভি নরসিমা রাও, এইচ ডি দেবগৌড়া এবং আই কে গুজরাল) এসপিজি নিরাপত্তা প্রত্যাহার করেছিল।

২০০৩ সালে এসপিজি আইনে ফের পরিবর্তন আনে বাজপেয়ী সরকার। এই সংশোধনীর মাধ্যমে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীদের এসপিজি নিরাপত্তা দেওয়ার সময়সীমা ১০ বছরকে কমিয়ে ১ বছর করা হয়। তবে কোনও প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরও তাঁর নিরাপত্তা সংক্রান্ত ঝুঁকির দিক বিবেচনা করে একবছর অতিক্রান্ত হয়ে যাওয়ার পরও এসপিজি নিরাপত্তা বহাল রাখার সংস্থানও রাখা হয় সংশোধিত আইনে। এ ক্ষেত্রে উল্লেখ্য, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ী প্রধানমন্ত্রীর পদে ইস্তফা দেওয়ার পরও আমৃত্যু এসপিজি নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যেই থেকেছেন।

Post a Comment

0 Comments