About Me

header ads

উত্তর জেলার বিশিষ্ট সমাজসেবীকে প্রানে মারার পরিকল্পনার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য!


উত্তর ত্রিপুরা জেলার বিশিষ্ট সমাজসেবী, আর,টি, আই এক্টিভিষ্ট তথা আইনসেবক গোপিকা কান্ত দত্ত’কে নিজ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মেরে ফেলার পরিকল্পনা করছেন পার্শবর্তী দেওয়ানপাশা গ্রামের ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রাজু ভট্টাচার্য উরফে মিন্টু নামের এক সমাজ দ্রোহী। যিনি বর্তমানে যুবরাজনগর সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিকের অধিনে দেওয়ানপাশা গ্রাম পঞ্চায়েতের স্বচ্ছাগ্রাহী হিসেবে কর্মরত।

ঘটনার বিবরনে জানা যায় যে গতকাল ২৭শে আগষ্ট ২০১৯ইং রাত্র আনুমানিক ৯ ঘটিকা নাগাদ অভিযুক্ত রাজু ভট্টাচার্য উরফে মিন্টু নিজ বাড়িতে বসেই গোপিকা কান্ত দত্ত’কে উনার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মেরে ফেলার পরিকল্পনা করছিলেন। সেই সময় এলাকার একজন ব্যাক্তি উনার এই মন্তব্য শুনে বিস্মিত হয়ে যান এবং সাথে সাথে কথা গুলি নিজ মোবাইলে রেকডিং করে ফেলেন এবং পরবর্তী সময়ে ঘটনাটি গোপিকা কান্ত দত্ত এর গোচরে আনেন। ঘটনার গুরুত্ব বুঝে আইনজ্ঞদের পরামর্শে গোপিকা কান্ত দত্ত আজ ধর্মনগর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

পরবর্তী সময়ে গোপিকা কান্ত দত্ত এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান যে উক্ত অভিযুক্ত রাজু ভট্টাচার্য উরফে মিন্টু এর সাথে উনার কোন ব্যাক্তিগত পরিচয়, যোগাযোগ বা বিবাদ নেই এমত পরিস্তিতিতে কি কারণে বা কাদের প্ররোচনায় অভিযুক্ত রাজু ভট্টাচার্য উরফে মিন্টু এই ধরনের পরিকল্পনা করছেন তাই ভাববার বিষয় অন্যদিকে গোপিকা কান্ত দত্ত এই ঘটনার পেছনে গভীর সড়যন্তের আশঙ্কা ব্যাক্ত করেন। এখন দেখার বিষয় ধর্মনগর মহকুমা পুলিশ উক্ত মামলার বিষয়ে কতটা সক্রিয় ভূমিকা গ্রহন করেন।


গোপিকা কান্ত দত্ত সুদীর্ঘ ১৫ বছর থেকে সমাজসেবা মূলক কাজের সাথে যুক্ত এবং ২০১৩ সাল থেকে উনি একজন Para Legal Volunteer হিসেবে কাজ করে আসছেন এবং একজন Para Legal Volunteer (PLV) হিসেবে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অপরাধীদের আইনের মাধ্যমে শাস্তি দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে আসছেন তাঁর মধ্যে অন্যতম একটি মামলা পুনম দাস হত্যা কান্ড, উনার সক্রিয় প্রয়াসের কারনেই বর্তমানে মামলাটি সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন। উনার কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ উনি জাতীয় সন্মানেও ভূষিত হয়েছেন। তাছাড়া একজন RTI Activist হিসেবেও উনার সমাজের প্রতি উনার ভূমিকা অবিস্মরণীয়। গোপিকা কান্ত দত্ত এর সাথে এই ধরনের ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য বিরাজ করছে। এলাকাবাসী অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবী করছেন।

Post a Comment

0 Comments