About Me

header ads

স্থানীয় প্রশাসন মনে না করলে স্বাভাবিক হবে না কাশ্মীর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

জম্মু কাশ্মীরের বিধিনিষেধ শিথিল করা হবে যখন স্থানীয় প্রশাসন মনে করবে তখনই। মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্র দফতরের এক আধিকারিক এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, “বিধিনিষেধের ফলে সমস্যা বনাম প্রাণহানির আশঙ্কার মধ্যে আমাদের উদ্বেগের বিষয় কাশ্মীরের মানুষের নিরাপত্তা।”

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের এক সূত্রের মতে, এই প্রথম কাশ্মীর এক বড় মাপের বিধিনিষেধের আওতায় পড়ছে, এমন নয়। তিনি বলেন, “২০১৬ সালে বুরহান ওয়ানির ম়ত্যুর পরেও বিক্ষোভের জেরে বহু মানুষের প্রাণহানি হয়েছিল। তখন যে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছিল তা বেশ কয়েক মাস ধরে চলেছিল। এবার আমরা সন্ত্রাস ও প্রাণহানি কমানোর জন্য প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিয়েছি।”

সংবাদমাধ্যমে যে ভাবে বিষয়টি দেখানো হচ্ছে তা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে তিনি বলেন, “হুরিয়ত যখন প্রায়ই শ্রীনগর অবরোধ করে রাখে, তখন তাদের সহানুভূতি দেখানো হয়।”

ওই আধিকারিক বলেন, “বিধিনিষেধ লাগু থাকার সময়ে যাতে জীবনযাত্রা সহজ ভাবে চলে সে জন্য প্রশাসন সমস্ত কষ্ট স্বীকার করছে। আমাদের শুধু বিধিনিষেধের ফলে উদ্ভূত সমস্যার দিকে তাকালেই চলবে না, সম্পূর্ণ পরিস্থিতি বুঝতে হবে।”

উপত্যকার রাজনীতিবিদদের আইনিভাবেই আটক রাখা হয়েছে বলে দাবি করে তিনি জানান স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পাওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন,  “ওঁদের কখন মুক্তি দেওয়া হবে তা ওরাই স্থির করবে। ওঁরা রাজনৈতিক বন্দি নন।”

সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে যারা দুষ্কর্ম করছে তাদের উপর নজর রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। “আমরা সেইসব হ্যান্ডেলের দিকে খেয়াল রাখছি যেগুলির মাধ্যমে উত্তেজনা ছড়ানো, সন্ত্রাসে প্ররোচনা দেওয়া বা ভুয়ো খবর ছড়ানোর চেষ্টা হচ্ছে। এটা বিশ্বব্যাপী একটা সমস্যা এবং যেসব দেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা রয়েছে তারাও  এ নিয়ে জর্জরিত।”

জম্মু কাশ্মীর প্রশাসন মঙ্গলবার জানিয়েছে বিধিনিষেধ উপত্যকায় অল্প অল্প করে শিথিল করা হচ্ছে এবং জম্মু ডিভিশনের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে। শ্রীনগরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে সরকারি মুখপাত্র রোহিত কানসাল এ কথা জানান।

কানসাল জানিয়েছেন চিকিৎসা পরিষেবাদানে কোনও রকম ব্যাঘাত ঘটেনি। তিনি জানিয়েছেন, “১৩৫০০ ওপিডিতে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এবং ১৪০০ জন নতুন করে ভর্তি হয়েছেন। উপত্যকার সমস্ত হাসাপাতালে জীবনদায়ী সহ সমস্ত রকম ওষুধ রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।”

ওই মুখপাত্র আরও বলেন, জাতীয় সড়কে ১০০টি ভারী গাড়ি এলপিজিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করছে।

উপত্যকার সব জেলায় স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের জন্য সমস্ত রকম মহড়াও হয়েছে বলে জানিয়েছেন কানসাল। তিনি বলেন স্বাধীনতার অনুষ্ঠান মসৃণভাবে সম্পন্ন হওয়ার সব বন্দোবস্ত সম্পন্ন।

Post a Comment

0 Comments