About Me

header ads

বিধায়কদের দল পরিবর্তনে সিকিমে বিরোধী বিজেপি!

সর্বশেষ বিধানসভা নির্বাচনে সিকিমে পরিবর্তন হয়েছে। দেশে সবথেকে দীর্ঘ সময় থাকা মু্খ্যমন্ত্রী পবন কুমার চামলিং সরকারের পতন হয়েছে। তবে বিধানসভা ও লোকসভার নিরিখে বিজেপি এই রাজ্যে শূন্য আসন পেলেও তারাই এখন প্রধান বিরোধী দলের তকমা হাসিল করতে চলল।
 
নয়াদিল্লিতে গিয়ে চামলিংয়ের দল এসডিএফের ১০ বিধায়ক সরাসরি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তাঁদের গেরুয়া শিবিরে স্বাগত জানান বিজেপির কার্যকরী সভাপতি জেপি নাড্ডা ও সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব।

এদিকে ১০ বিধায়ক দলত্যাগ করায় ৩২ সদস্যের সিকিম বিধানসভার রাজনৈতিক চিত্র পাল্টে গেল। প্রধান বিরোধী দলের ভূমিকা নিতে চলেছে বিজেপি। আর তৃতীয় স্থানে নেমে গেল সিকিম ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(এসডিএফ)।

সর্বশেষ বিধানসভা নির্বাচনে এসডিএফ তাদের দীর্ঘ সময় ক্ষমতা হারায়। দলের ১৫ জন সদস্য নির্বাচিত হন। আর ক্ষমতায় আসে সিকিম ক্রান্তিকারি মোর্চা। তাদের বিধায়ক সংখ্যা ১৭। মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন পিএস তামাং। বিরোধী নেতা হয়েছেন পবন কুমার চামলিং।

কিন্তু লোকসভা ও বিধানসভায় বিজেপি সিকিমে কোনও আসনই পায়নি। তারপরেই বিভিন্ন রাজ্যে বারে বারে দল ভাঙানোর অভিযোগ উঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। এবার সিকিমের ১০ জন এসডিএফ বিধায়ককে টেনে নিয়েছে বিজেপি।

চিন ও ভুটান সীমান্ত লাগোয়া সিকিম ১৯৭৫ সালে রাজতন্ত্র অবসানে একটি স্বাধীন ভূখণ্ড থেকে ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয়। তারপর কংগ্রেস ক্ষমতায় আসে। পরে কংগ্রেস থেকে মুখ ঘুরিয়ে স্থানীয় দলকেই বারবার ক্ষমতায় বসিয়েছেন সিকিমবাসী। সেই নিরিখে পবন কুমার চামলিংয়ের দল এসডিএফ একটানা ১৯৯৯ সাল থেকে সিকিমে ক্ষমতায় ছিল। ২০১৯ সালে হয় চামলিং সরকারের পতন হয়।

এর আগে পশ্চিমবঙ্গে টানা তিন দশকের বাম শাসন হয়েছে। জ্যোতি বসুর সেই মুখ্যমন্ত্রী থাকার রেকর্ড ভেঙেছিলেন চামলিং। ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারও এই রেকর্ডের কাছাকাছি রয়েছেন। আর গুজরাটে টানা সরকার চালাচ্ছে বিজেপি।

Post a Comment

0 Comments