About Me

header ads

এস সি ই আর টি-র উদ্যোগে নতুন দিশার প্রকল্পের উপর আলোচনা শিবির!

শিক্ষার জন্য শিক্ষা ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার সব চাইতে বেশী গুরুত্ব দিচ্ছে। শিক্ষা ক্ষেত্রে লক্ষ্যে আনার জন্য যা যা করার তাই করছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের ২৫০ জন কি রিসোর্স পার্সন অর্থাৎ শিক্ষকদের মধ্যে শিক্ষন জনিত শিক্ষক বেছে নেওয়া হয়েছে যারা এন সি আর টি – থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত। তারই সারা রাজ্যে ১৭ হাজার শিক্ষককে প্রশিক্ষণ করাবে।

সার্ভেতে উঠে এসেছে তৃতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত ৫৭ শতাংশ পড়ুয়ার অনেকের অক্ষর জ্ঞান নেই। অনেকে বাক্য পড়তে পারেনা, যোগ- বিয়োগ সঠিক ভাবে করতে পারে না। তাদেরকে কামাল পদ্ধতির মাধ্যমে প্রথম ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। সেই সমস্ত শিক্ষকদের ৫ জুলাই থেকে প্রশিক্ষণ শুরু হবে। ২৫০ জন কি রিসোর্স পার্সন পাইলট প্রজেক্টের মাধ্যমে প্রতি মহকুমায় ৩৫ জন করে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেবে।

প্রথম দফায় ৫ দিনের প্রশিক্ষন দেওয়া হবে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ১১ জুলাই থেকে শুরু হবে প্রশিক্ষণ পর্ব। এর জন্য বিদ্যালয় শিক্ষা দপ্তর প্রস্তুতি নিচ্ছে। প্রশিক্ষণ শেষে স্কুলের ক্লাসে গিয়ে প্রয়োগ করে সাফল্য এসেছে। তৃতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ুয়াদের  মানস করে দিতে পারলে তাহলে উপরের দিকে আর চিন্তা করতে হবে না।

মঙ্গলবার এস সি ই আর টি-র উদ্যোগে প্রজ্ঞাভবনে নতুন দিশার প্রকল্পের অঙ্গ হিসাবে এক দিবসীয় আলোচনা শিবিরের উদ্বোধন করে এই কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথ। তৃতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত ৩ লক্ষ ১৬ হাজার ছেলে মেয়েদের উপর এই সার্ভে কার হয়েছিল। এদের মধ্যে ১ লক্ষ ৮০ হাজার দুর্বল। এদের চিহ্নিত করে যাবতীয় ব্যবস্থা তৈরি করা হচ্ছে।  কে পড়াবেন তাও ঠিক করা হচ্ছে। এটা রাজ্যে প্রথম ও ঐতিহাসিক পদক্ষেপ বলে জানান তিনি। এই প্রকল্প নেওয়ার পর শিক্ষকরা জে ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তা মডেল বলে জানান শিক্ষা মন্ত্রী রতন লাল নাথ। প্রশিক্ষণ প্রান্ত শিক্ষকরা এই ট্রেনিং –এ অংশ নিচ্ছে বলে জানান তিনি।

Post a Comment

0 Comments