About Me

header ads

রাস্তায় উদ্ধার ত্রিপুরা পঞ্চায়েত নির্বাচনের ব্যালট ঘিরে চাঞ্চল্য!

পঞ্চায়েত নির্বাচনের ‘ভোট লুঠ’ নিয়ে সরগরম ত্রিপুরার রাজনীতি। বিরোধীদের অভিযোগ, যে ১৪ শতাংশ আসনে নামমাত্র নির্বাচন হয়েছে তাতেও শাসক বিজেপি-আইপিএফটি জোট সরকার ছাপ্পা চালিয়েছে। সেই অভিযোগের প্রমাণ হিসেবে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল সিপিএম এবার তাদের ফেসবুক পেজে রাস্তায় ছড়িয়ে থাকা ব্যালট পেপারের ছবি প্রকাশ করল।
 
সিপিএমের দাবি, বিলোনীয়ার রাস্তায় পড়ে রয়েছে ব্যালট। তাতে রয়েছে প্রিসাইডিং অফিসারের সই। বিলোনীয়ার রাজনগরের বাগানবাড়ি এলাকা থেকে এই ব্যালট পেপার উদ্ধার হয়েছে। তাদের আরও দাবি এইভাবেই বানচাল হয়েছে ভোট। এর জেরে শুরু হয়েছে আলোড়ন। পশ্চিমবঙ্গে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে ব্যাপক রিগিংয়ের অভিযোগ ওঠে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। নির্বাচনের পরে বিভিন্নস্থানে মেলে ছেড়া-ফাটা বান্ডিল বান্ডিল ব্যালট।

গত ২৭ জুলাই ত্রিপুরায় ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন কমিশনের তথ্য বলছে ৮৬ শতাংশ আসনেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে বিজেপি। নির্বাচনের আগেই বিরোধী বাম ও কংগ্রেস দাবি করে শাসক দল ভোটকে প্রহসনে পরিণত করেছে।

নির্বাচন মিটতেই সাংবাদিক সম্মেলন করে ত্রিপুরা সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক জানান, প্রহসনে পরিণত করা হয়েছে ভোটকে। একই সুরে কথা বলেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিও। যদিও বিজেপির দাবি, রাজ্যবাসী বিপুল সমর্থন দিয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস যেমন পঞ্চায়েত নির্বাচনে রিগিং করেছে, ঠিক তেমনই ত্রিপুরায় বিজেপি ভোট রিগিং করেছে।

গত বিধানসভা নির্বাচনে ত্রিপুরায় বাম শাসনের পতন হয়। তারপর লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের দুটি আসনেই জয়ী হয় বিজেপি। লোকসভায় দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে কংগ্রেস।

এরপর পঞ্চায়েত নির্বাচন ঘিরে বার বার অভিযোগ উঠতে শুরু করে। লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে রাজ্যে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক সংঘর্ষ। অভিযোগ, বিরোধীদের উপর ক্রমাগত হামলা চালাচ্ছে বিজেপি সমর্থকরা।

Post a Comment

0 Comments