About Me

header ads

মণিপুরে জঙ্গি ডেরা গুঁড়িয়ে দিল সেনা, উদ্ধার প্রচুর অস্ত্র!

উত্তর-পূর্ব ভারতে গোপনে শক্তি বাড়াচ্ছে জঙ্গি সংগঠন এনএসসিএন (আইএম)। গোয়েন্দা সূত্রে দীর্ঘদিন ধরেই এই খবর আসছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে। অবশেষে ওই জঙ্গি গোষ্ঠীর গোপন ডেরায় হানা দিয়ে শিবির গুঁড়িয়ে দিল ভারতীয় সেনা। সেই সঙ্গে প্রচুর অস্ত্রশস্ত্রও উদ্ধার করল জওয়ানরা।
 
সূত্রের খবর, ওই গোপন অভিযান থেকে উদ্ধার হয়েছে এমআই-১৬ মার্কিন অ্যাসল্ট রাইফেল, ১৫০ রাউন্ড গুলি-সহ প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র। আটক করা হয়েছে এক জঙ্গিকেও।
সেনা সূত্রে খবর, ফের সক্রিয় হয়েছে জঙ্গি সংগঠন এনএসসিএন (আইএম)। মণিপুরের বিস্তীর্ণ অংশে ভিত শক্ত করছে তারা। মণিপুর-সহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলির গ্রামেগুলিতে তোলাবাজি ও লুটপাট চালাচ্ছে তারা। সাধারণ মানুষের উপর অকথ্য অত্যাচার চালাচ্ছে।

জানা গিয়েছে, এই খবর পেয়ে গত ৫ জুলাই গভীর রাতে মণিপুরের কেকরু নাগা গ্রামে অভিযান চালায় সেনা বাহিনীর জওয়ানরা। সেখানেই এনএসসিএন (আইএম)-র গোপন ডেরার সন্ধান পান তারা। উদ্ধার হয় বিপুল সংখ্যক অস্ত্রশস্ত্র ও জঙ্গি সংগঠনের পোশাক-আশাক। অস্ত্রদ্ধারের পর জঙ্গি ডেরায় আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

সেনার অনুমান, সন্ত্রাসদমন অভিযানের খোঁজ আগেভাগেই পেয়ে গিয়েছিল জঙ্গিরা। তাই তড়িঘড়ি ঘাঁটি থেকে চম্পট দেয় তারা। সূত্রের খবর, গ্রামবাসীদের মধ্যে মিশে যাওয়ার চেষ্টা করে তারা। তবে শেষরক্ষা হয়নি। এই পালানোর সময়ই সেনার হাতে পাকড়াও হয় এক এনএসসিএন (আইএম) জঙ্গি। সেনা সূত্রে খবর, উত্তর-পূর্বে আর কোথায় কোথায় জঙ্গিরা এমন গোপন আস্তানা গড়ে তুলেছে সেই খোঁজ চালানো হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ১৯৮০ সালে থুইংগালেং মুইভা ও ইসাক চিসি সু-র নেতৃত্বে এনএসসিএন (আইএম) নামক জঙ্গিগোষ্ঠীটি তৈরি হয়। তখন থেকেই মণিপুরে সক্রিয় ছিল এই জঙ্গিগোষ্ঠী। ২০১৫ সালে কেন্দ্রের সঙ্গে একটি সংঘর্ষবিরতি চুক্তি স্বাক্ষর করে এই গোষ্ঠী। সেই চুক্তি অনুযায়ী নির্দিষ্ট ক্যাম্পের বাইরে অস্ত্র নিয়ে যাওয়ার অনুমতিই নেই জঙ্গি গোষ্ঠীর সদস্যদের। কিন্তু চুক্তি লঙ্ঘন করে গোপনে উত্তর-পূর্বে শক্তি বাড়ানোর চেষ্টা করছিল ওই জঙ্গি গোষ্ঠী।

Post a Comment

0 Comments