About Me

header ads

তৃণমূল মূর্তি ভাঙলে ঠাস ঠাস চড় মারতাম: মমতা

ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি উন্মোচন করে বিদ্যাসাগর কলেজে তাণ্ডবের ঘটনায় ফের বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার হেয়ার স্কুলে বিদ্যাসাগরের মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘একটা বাচ্চা কাচের গ্লাস ভাঙলে, চড়-থাপ্পড় মারি, বুড়ো খোকারা ভাঙলে ভাবতে হয়…এটা ভাঙা নয়, আমাদের কৃষ্টি, সংস্কৃতিকে আঘাত করা…যাঁরা মূর্তি ভেঙেছেন, তাঁদের কোনও আপশোস নেই’’। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুরে তৃণমূল জড়িত নয় বলেও এদিন ফের সাফ জানিয়ে দিলেন মমতা। তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, ‘‘তৃণমূল ভাঙলে, ঠাস ঠাস চড় মারতাম। তৃণমূল ভাঙেনি, আমি আমার দলকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি’’। এরপরই বিজেপিকে কটাক্ষের সুরে মমতা বলেন, ‘‘ঈশ্বর ওরা জানে না ওরা কী করেছে, ওদের ক্ষমা করো’’।
মঙ্গলবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘বাংলা ফেলনা নয়, খেলনা নয়, হাতের মোয়া নয় যে যা ইচ্ছা করা যাবে। মূর্তি ভেঙে বিদ্যাসাগরকে মোছা যাবে না। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে বর্ণপরিচয় ভাঙা যায় না। আসলে বাংলাকে ভুলিয়ে দেওয়ার প্রচেষ্টায় একটা চক্রান্ত করা হচ্ছে’’। বিদ্যাসাগর কলেজে তাণ্ডবের ঘটনা প্রসঙ্গে মমতা এদিন বলেন, ‘‘কেন বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হল? কেন এখনকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মিছিলে গুন্ডামি হল?…সবার দ্বারা গেরুয়া হয় না, যাঁরা সম্মান দিতে জানেন, তাঁরাই পারেন’’। উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনের সময় উত্তর কলকাতায় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শো ঘিরে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে কলেজ স্ট্রিট চত্বরে। সেসময়ই বিদ্যাসাগর কলেজে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুর করার অভিযোগ ওঠে, যা ঘিরে উত্তাল হয় রাজ্য রাজনীতি। এরপরই মূর্তি স্থাপনের কথা ঘোষণা করে সরকার।

বিদ্যাসাগরের দুটি মূর্তির পাশাপাশি আগামী দিনে কলেজ স্ট্রিট চত্বরে আরও ৪টি ব্রোঞ্জের মূর্তি বসানো হবে বলে এদিন ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘আমরা ৪টি ব্রোঞ্জের মূর্তি করব। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে আশুতোষ মুখোপাধ্যায়, প্রেসিডেন্সির সামনে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ও কাজী নজরুল ইসলামের মূর্তি বানানো হবে’’। পাশাপাশি, বীরসিংহ গ্রামে বিদ্যাসাগরের বাড়িটিকে হেরিটেজ করার কাজ চলছে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। মমতা আরও জানান, বিদ্যাসাগর কলেজে মিউজিয়াম গড়া হবে, এজন্য ১ কোটি টাকা দিচ্ছে রাজ্য সরকার।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য