About Me

header ads

আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস উপলক্ষে পদযাত্রা!


ন্যায়ের জন্য স্বাস্থ্য, স্বাস্থ্যের জন্য ন্যায় এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক মাদক বিরোধী দিবস উপলক্ষে উওর ত্রিপুরা জেলা আইনসেবা কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে আজ ২৬শে জুন ধর্মনগর শহরের প্রান কেন্দ্র জুড়ে এক জন সচেতনতা মূলক পদযাত্রার আয়োজন করা হয়।

আজকের পদযাত্রাটি ধর্মনগর জেলা আদালত  প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে ধর্মনগর শহরের বিভিন্ন এলাকা হয়ে পুনরায় ধর্মনগর জেলা আদালত  প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়। উক্ত পদযাত্রায় উপস্তিত ছিলেন শ্রীঃ গোপীকা কান্ত দত্ত সহ ১০জন আইনসেবক এবং শ্রীপুর ও দেওয়ানপাশা গ্রামের প্রায় ২৫ জন যুবক যুবতী সহ অন্যান্যরা।


মাদকসেবন, পরিবহণ, পাচার ও চোরাচালানের বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টিতে, প্রতি বছর বিশ্ব জুড়ে দিবসটি পালন করা হয়। ১৯৮৭ সালের ৭ ডিসেম্বর, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের প্রস্তাবনা অনুযায়ী ২৬ জুনকে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এরপর ১৯৮৯ সাল থেকে প্রতি বছর দিবসটি পালন করে আসছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলো। জাতিসংঘ অনুসারে, বিশ্বে প্রতি বছর প্রায় সাড়ে ৫০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের মাদক ব্যবসা হয়, পুরোটাই অবৈধ উপায়ে। এছাড়া মাদক সেবীর সংখ্যা বিশ্বে প্রায় ৩৫০ মিলিয়ন। তার মধ্যে নিয়মিত মাদকসেবীর সংখ্যা কয়েক কোটি।


মদ, তামাক এবং মানুষের চেতনা ও অনুভূতি আচ্ছন্নকারক দ্রব্যাদি মাদকদ্রব্য হিসেবে চিহ্নিত, এ সব নিষিদ্ধ দ্রব্যের পাশাপাশি কিছু কিছু জীবন রক্ষাকারী ঔষধও নেশার উপকরণ হিসেবে ব্যবহূত হয়ে থাকে। মানুষের স্বাভাবিক মানসিক ক্রিয়ার ওপর প্রভাব বিস্তারকারী এ প্রক্রিয়াকেই মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার হিসেবে চিহ্নিত করা হয়, যদিও জাতিসংঘ কনভেনশনে মাদকদ্রব্য অপব্যবহারের কোনো সংজ্ঞা দেওয়া হয়নি।


অবৈধ মাদকদ্রব্য অসংখ্য জীবন ধ্বংস করে এবং সামাজিক ক্ষতির কারণ হয়। মাদকদ্রব্যের অবৈধ ব্যবসায় এবং এর প্রতিক্রিয়া আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে একটি বড় চ্যালেঞ্জ। বহু শতাব্দী ধরে মাদকদ্রব্য গ্রহণ জীবনের জন্য একটি করুন বাস্তবতা এবং গত ৫ দশকে এতে আসক্তির পরিমাণ ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে।


অবৈধ মাদকের ব্যবহার এবং অপরাধ হাত ধরাধরি করে চলে। মাদক ব্যবহারকারীরা তাদের নেশা মেটানোর জন্য মাদকদ্রব্য পেতে আক্ষরিক অর্থেই যে কোন অপকর্ম করতে পারে। মাদক গ্রহণকারীরা মাদকের প্রভাবে অনেক অপরাধ করে থাকে। দেশে নেশা আসক্তের সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং এর স্বাভাবিক পরিণতি হিসেবে অপরাধ প্রবণতাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।


আমাদের রাজ্যে গত এক বছরে মাদক সংক্রান্ত আটক, অবৈধ মাদকদ্রব্য বাজেয়াপ্ত এবং চিকিৎসা সাহায্যপ্রার্থী মাদকাসক্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। মাদকদ্রব্য অপব্যবহারের সমস্যাসমূহ সন্ত্রাস, অপরাধ, পারিবারিক বিপর্যয়, স্বাস্থ্যসমস্যা ইত্যাদির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। মাদকদ্রব্য গ্রহণের ফলে স্বাভাবিক প্রজনন ক্ষমতায় বাধাসহ মস্তিষ্ক, হূদযন্ত্র ও ফুসফুসের দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি হতে পারে। মাদক ব্যবহারের সঙ্গে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর যে সমস্যা জড়িত তা হলো যে সমস্ত মাদকসেবী ইনজেকশন নেয় তাদের মধ্যে এইচআইভি-র বিস্তার।


ভারত সরকার ও ত্রিপুরা রাজ্য সরকার মাদকের অপব্যবহারকে অন্যতম মারাত্মক সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করেছে এবং এর প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক এবং দ্বিপাক্ষিক প্রচেষ্টার প্রতি দৃঢ়ভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ।


মাদকদ্রব্যের বিরুদ্ধে যে সংগ্রাম তা একটি বহুমুখী কাজ এবং সংশ্লিষ্ট সকল ক্ষেত্রের জনগন ও সামাজিক সংগঠন মিলে এই কাজ সম্পন্ন করতে হবে। এরই অঙ্গ হিসেবে উওর ত্রিপুরা জেলা আইনসেবা কর্তৃপক্ষ থেকে এই জন সচেতনতা মূলক পদযাত্রার আয়োজন করা হয়।

Post a Comment

0 Comments