About Me

header ads

রাজনৈতিক হিংসার তীব্র প্রতিবাদে সোচ্চার আই পি এফ টি!

এই রাজ্যে যে কোন নির্বাচনের পূর্বে ও পড়ে রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা ঘটছে। আগে এই রাজ্যে এতটা ছিল না। হিন্দি বলয়ে এই হিংসা হত। কিন্তু দুর্ভাগ্য ক্রমে এই রাজ্যেও তা দেখা দিয়েছে। সক্রিয় রাজনীতিতে দুরবৃত্তায়ন। এটা অস্বীকার করার কোন সুযোগ নেই। আগরতলা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই কথা বলেন আই পি এফ টি-র সভাপতি তথা মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা। এই অবস্থায় গত ২১ মে জম্পুইজলার এস ডি এম এক সর্ব দলীয় বৈঠক ডাকে। বৈঠক শেষ হওয়ার পর কিছু দুষ্কৃতিকারী তাকে দৈহিক ভাবে আক্রমণ করে। এই ঘটনার নিন্দা জানায় আই পি এফ টি। একই সঙ্গে এই ধরনের ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেই বিষয়টিও নিশ্চিত করার দাবি জানান।

উন্নয়ন মূলক কাজ কর্ম নিয়ে লাগাতার কোন পর্যালোচনা বৈঠক হয়নি । পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর এই বৈঠক হওয়া উচিৎ ছিল বলে জানান তিনি। রাইমাভ্যালী বিধানসভা কেন্দ্রের আই পি এফ টি বিধায়ক ধনঞ্জয় ত্রিপুরার বিরুদ্ধে ওঠা বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করার অভিযোগ ও বিধায়কের উচ্চ আদালতে আগাম জামিনের আবেদন খারিজ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে আই পি এফ টি-র সভাপতি তথা মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা বলেন তার বিয়ের বিষয় চূড়ান্ত ছিল। কিন্তু কোন এক কারনে যোগাযোগে দূরত্ব তৈরি হওয়ায় এই বিয়ে হয়নি। আই পি এফ টি- দলের পক্ষ থেকে তাদের বিয়ে যাতে হয় তার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে। মাঝে কিছু মানুষ ভুল বুঝিয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু তাদের রেজেস্ট্রি  ও সামাজিক বিবাহ দুটোই হবে বলে জানান তিনি। যে অপপ্রচার হয়ে ছিল তা ঠিক নয় বলে দাবি করেন তিনি।

দশম তপশীল অনুযায়ী অনুযায়ী এক দল থেকে নির্বাচিত জন প্রতিনিধি অন্য দলে যোগদান করার বিষয়টি অনেক কঠিন। ২০১৩ সালের সংশোধনের পর এটা আরো কঠোর করা হয়েছে। আই পি এফ টি- র মাত্র ৮ জন বিধায়ক। এর দুই তৃতীয়াংশ মানে ৬ জন। আর ৬ জন যদি এক সাথে না গেলে অন্য দলে যাওয়া সম্ভব নয়। দলের থেকে তাদের সদস্য পদ খারিজ হতে বাধ্য। আই পি এফ টি বিধায়করা অন্য দলে যাচ্ছে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দেন আই পি এফ টি-র সভাপতি তথা মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। নতুন সরকার দায়িত্ব ভার গ্রহণ করেছে। নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দল পর্যালোচনা করেছেন। আই পি এফ টি-র পক্ষ থেকে দুবার পর্যালোচনা করা হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনে আই পি এফ টি দলের ফলাফল মোটেই আশানুরূপ হয়নি। কেন হয়নি তা মূল্যায়ন করা হয়েছে। সেই ক্ষেত্রে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

আগামী জুলাই মাসের ৬ ও ৭ তারিখে রাজ্য সম্মেলনে এই বিষয়ে আরো গুরুত্ব সহকারে আলোচনা করা হবে বলে জানান আই পি এফ টি-র সভাপতি তথা মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা।

আসন্ন ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে জোট বদ্ধ ভাবে না পৃথক ভাবে লড়াই করবে  আই পি এফ টি- এই প্রশ্নের উত্তরে আই পি এফ টি-র সভাপতি তথা মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা জানান এই বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। তবে প্রয়োজনে পৃথক ভাবে লড়াই করা হবে বলে জানান তিনি। তবে মন্ত্রীসভা কোন মন্ত্রীকে রাখা ও বাদ দেওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ মুখ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত বলে জানান আই পি এফ টি-র সভাপতি তথা মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা।

এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আই পি এফ টি-র সাধারন সম্পাদক তথা মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া সহ অন্যান্যরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য