About Me

header ads

বিয়ের ৩মাসের মাথায় শশুরবাড়িতে নির্যাতিতা গৃহবধূ!

গত সাড়ে তিন মাস পূর্বে ভালবেসে বিয়ে হয় অন্তরা বনিক ও সত্যজিৎ দাসের স্বামী সত্যজিৎ দাস পেশায় চিকিৎসক অন্যদিকে অন্তরা বনিক বি এস সি নার্সিং উত্তীর্ণ পরিবারের অভিযোগ ভালবাসা চলাকালীন সময়ে দুজনে বিয়ে করবে বলে ঠিক হয় কিন্তু মাঝে অন্তরার কিছু বিষয়ে অসঙ্গতি চোখে পড়ে সে বিয়ে করবে না বলে পরিবারকে জানায় কিন্তু প্রেমীক সত্যজিৎ দাস বিয়ে করবে বলে নাছোড় বান্দা ছিল মেয়ের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রেখে বিয়ের জন্য তাদের রাজি করায়

গত সাড়ে তিন মাস আগে দুজনের সামাজিক ভাবে বিয়ে হয় গৃহবধূর বাপের বাড়ির অভিযোগ এরপর থেকে অন্তরাকে বাপের বারি আসতে দিন না শ্বশুর বাড়ির লোকেরা তার উপর চালানো হত মানসিক নির্যাতন এমনকি ফোনে বাড়ির লোকেদের সঙ্গে কথা বললেও তার উপর চালানো হত নজর দারী এই অবস্থায় ভেঙ্গে পড়ে অন্তরা

গত বৃহস্পতিবার গৃহবধূ অন্তরাকে স্বামী চিকিৎসক সত্যজিৎ দাস  ও শ্বাশুরি অনিমা বৈদ্য মিলে ঘুমের ওষুধ খেতে দেয় তাকে এই ওষুধ খেতে বাধ্য করা হয় অপমানে অন্তরা এই ঘুমের ওষুধ খায় অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ভর্তি করা হয় টি এম সি হাসপাতালে শুক্রবার বিষয়টি পরিবারকে জানানো হয়

অবশেষে গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকেরা শুক্রবার সন্ধ্যায় আমতলি থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ হাপানিয়া দুর্গাপাড়া শ্বশুর বারি গিয়ে অভিযুক্ত স্বামী চিকিৎসক সত্যজিৎ দাসকে পায়নি অবশেষে শনিবার এই ঘটনায় অভিযুক্ত শ্বাশুরি অনিমা বৈদ্যকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে আসে এই ঘটনার তদন্ত অব্যাহত র‍য়েছে বলে জানায় পুলিশ গৃহবধূ অন্তরা বনিকের অবস্থা আশঙ্কা জনক বলে জানা গেছে

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য