About Me

header ads

আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন অসাধারণ সেলসম্যান: অধীর

সংসদে ফের ঝড় তুললেন লোকসভার কংগ্রেস দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরি। এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে একজন ভাল সেলসম্যান বলে কটাক্ষ করলেন বহরমপুরের সাংসদ।

অধীর সোমবার বলেন, “আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন অসাধারণ সেলসম্যান। সেই জন্যই উনি নির্বাচনে জিততে পেরেছেন। অন্যদিকে, কংগ্রেস তাদের প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারেনি। কিন্তু মান যেমনই হোক, বিজেপি তাদের প্রোডাক্টগুলি বিক্রি করতে সফল হয়েছে।”

এদিনের ভাষণে কৌশলে বিজেপি-র অর্ন্তদ্বন্দ্বকেও তুলে আনার চেষ্টা করেছেন অধীর। তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী মোদী একবার এক ভাষণে দাবি করেছিলেন, তিনি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দেশের মানুষ ভারতীয় ঐতিহ্য সম্পর্কে গর্ববোধ করেন। এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বলতে চেয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ী প্রকৃত ভারতীয় ছিলেন না।”

বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার প্রশংসার জন্য লালায়িত বলে কটাক্ষ করেন অধীর। তাঁর অভিযোগ, প্রশংসা কুড়োতে এই সরকার তথ্যবিকৃতি করতেও পিছপা হয় না। অধীর বলেন, “আমরা হেরে গিয়েছি ঠিকই, কিন্তু আমরা এখনও মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু বর্চমান কেন্দ্রীয় সরকার কংগ্রেসের করা কাজের জন্য কৃতিত্ব দাবি করছে। প্রশংসার জন্য লালায়িত একটি সরকারের কাছে এমনটাই প্রত্যাশিত।”

কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ-২ সরকারের বিরুদ্ধে তৎকালীন বিরোধী দল বিজেপি ২জি স্পেকট্রাম দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিল। অধীর এদিন দাবি করেন, ইউপিএ চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধি, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধিদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছিল বিজেপি। তাঁর কথায়,

২-জি স্পেকট্রাম বা কয়লা কেলেঙ্কারিরভিযোগের প্রেক্ষিতে আপনারা একজনকেও গ্রেফতার করতে পেরেছেন কি? রাহুল গান্ধি, সনিয়া গান্ধিকে জেলে পাঠাতে পেরেছেন কি? আপনারা প্রচার করলেন তাঁরা চোর, সেই প্রচারের জেরে আপনারা ক্ষমতায় এলেন, অথচ ওঁরা সংসদেই বসে রয়েছেন।

অধীর এদিন দাবি করেন, ভারতের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, রোবোটিক্স, টেলিকম সেক্টরে যাবতীয় উন্নতির সূচনা হয় প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব  গান্ধির আমলে। লোকসভার কংগ্রেস দলনেতার অভিযোগ, ইউপিএ আমলে দরিদ্রদের জন্য যে প্রকল্পগুলি গ্রহণ করা হয়েছিল, বিজেপি সেগুলির কৃতিত্ব দাবি করছে। তাঁর কথায়, “এমএনআরইজিএ, তথ্যের অধিকার আইন, খাদ্য নিরাপত্তা আইন, শিক্ষার অধিকার আইনের মতো অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ আইন কংগ্রেস আমলেই তৈরি হয়েছে। এই সরকার সেই প্রকল্পগুলোকেই নাম বদলে কৃতিত্ব দাবি করছে।”

Post a Comment

0 Comments