About Me

header ads

কেন নির্বাচন কমিশন ‘পি এম নরেন্দ্র মোদী’র মুক্তি স্থগিত করে দিল?

বুধবার নির্বাচন কমিশন বিবেক ওবেরয় অভিনীত ‘পিএম নরেন্দ্র মোদী’ ছবির মুক্তি আটকে দিয়েছে। যতদিন না লোকসভা নির্বাচন প্রক্রিয়া স্থগিত থাকে, ততদিন এ ছবি মুক্তি পাবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে কমিশন। সুপ্রিম কোর্ট মঙ্গলবার এ ছবির মুক্তির উপর স্থগিতাদেশ আরোপ করার একটি আবেদন খারিজ করে দিয়ে বলেছিল, এই ছবি নির্বাচনী ভারসাম্য নষ্ট করবে কিনা তা দেখবে নির্বাচন কমিশন।

বুধবারের নির্দেশে নির্বাচন কমিশন বলেছে, “কোনও বায়োপিক যদি কোনও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব অথবা তাঁর সঙ্গে সম্পর্কিত কোনও ব্যক্তিকে নিয়ে তৈরি হয়, যা নির্বাচনের সময়ে ভারসাম্য নষ্ট করতে পারে বা তেমন উদ্দেশ্যে নির্মিত হয়, তাহলে আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লাগু থাকাকালীন তা সিনেমাটোগ্রাফ সহ ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রদর্শিত হওয়া উচিত নয়।”

নির্বাচন কমিশন জোর দিয়ে বলেছে, “সংবিধানের ৩২৪ নং ধারানুসারে, নির্বাচনের কর্তৃত্ব, পরিচালনা এবং দেখভালের দায় কমিশনের উপরে ন্যস্ত রয়েছে এবং কমিশনের কর্তব্য ভারসাম্যের পরিস্থিতি তৈরি করা এবং সমস্ত পক্ষের কাছে সহায়ক নির্বাচনী পরিস্থিতি তৈরি করা।”

কমিশন জানিয়েছে, তারা বেশ কয়েকটি সিনেমা সম্পর্কে অভিযোগ পেয়েছে। “এর মধ্যে রয়েছে এনটিআর লক্ষ্মী, পিএম নরেন্দ্র মোদী এবং উদয়মা সিংহম। অভিযোগ উঠেছে, এই সিনেমাগুলিতে কোনও না কোনও প্রার্থী বা রাজনৈতিক দলকে নির্বাচনী সুবিধা দেওয়ার জন্য বা ছোট করার জন্য় এগুলি তৈরি করা হয়েছে, এবং তা করা হয়েছে সৃষ্টির স্বাধীনতার নামে। এসবই আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লাগু থাকাকালীন কোনও না কোনও প্রার্থী বা রাজনৈতিক দলকে সুবিধা করে দেওয়ার জন্য একধরনের প্রতিনিধিত্বমূলক প্রচার।”

কমিশন তার নির্দেশে বলেছে, “অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনকে শুধু সুপ্রিম কোর্ট ভারতীয় সংবিধানের সাধারণ ভিত্তি হিসেবে বর্ণনা করেছে তাই নয়, একটি গণতন্ত্রে প্রত্যেক নাগরিকের পবিত্র অধিকারও বটে।”