About Me

header ads

গেটের বাইরে ঝুলছে মুরগির মাথা, ভোট দানের বিরুদ্ধে সতর্কবার্তা!

হাতে লেখা, ভুল বানান সম্বলিত চিরকুট, সঙ্গে মুরগির কাটা মাথা। মঙ্গলবার সকালে ত্রিপুরার খোয়াই জেলার জাম্বুরা গ্রামে হাড় হিম করা এই দৃশ্যই দেখা গেল একাধিক সিপিএম সমর্থকের বাড়ির বাইরে, রাজধানী আগরতলা থেকে মাত্র ৫৫ কিলোমিটার দূরে। বৃহস্পতিবারে অনুষ্ঠেয় পূর্ব ত্রিপুরা (এসটি সংরিক্ষত) আসনের জন্য নির্বাচনে কেউ যাতে ভোট দিতে না যান, সেই সতর্কবার্তা প্রতিটি চিরকুটে। কাগজের টুকরোয় যা লেখা, তার মর্মার্থ হলো, “১৮ এপ্রিল ভোট দিতে গেলে এই অবস্থাই হবে।” চিরকুটের গায়ে সাঁটা মুরগির মাথা স্পষ্ট করে দিচ্ছে, ভোটদাতার পরিণতি কী হবে।

জাম্বুরা গ্রামের বাসিন্দা স্বদেশ দেবনাথ জানান যে তিনি সকালে উঠে দেখেন, বাড়ির গেটে ঝোলানো হাতে লেখা মৃত্যুর হুমকি, সঙ্গে ঝোলানো মুরগির মাথা। “আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে আমরা ভোট দিতে যাব। এখনকার মতো খারাপ পরিস্থিতি হলে অবশ্য নাও যেতে পারি। পুরো পরিবার ভয়ে রয়েছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি মোটেই ভালো নয় এখানে।”
স্বদেশবাবু আরও বলেন যে তিনি সিপিএম সমর্থক, এবং এই হুমকি কেবলমাত্র সিপিএম সমর্থক এবং তাঁদের পরিবারকেই দেওয়া হয়েছে।

খোয়াইয়ের বিধায়ক তথা সিপিএম নেতা নির্মল বিশ্বাস বলেন যে ওই হাতে লেখা চিরকুটগুলি বিশেষভাবে চিহ্নিত সিপিএম সমর্থকদের বাড়িতে বাড়িতে বিলি করা হয়েছে বিজেপির তরফে, স্পষ্টতই ১৮ এপ্রিল যাতে তাঁরা ভোট দিতে না যান, তা নিশ্চিত করতে।

রাজ্যের সহকারি ইনস্পেক্টর জেনারেল সুব্রত চক্রবর্তী দাবি করেছেন, কোনো হুমকির অভিযোগ আসে নি তাঁদের কাছে। “আমাদের কাছে এখনো এই ধরনের কোনো খবর নেই,” বলেন তিনি।

বিজেপির মুখপাত্র নবেন্দু ভট্টাচার্য তাঁর দলের বিরুদ্ধে ওই চিরকুট বিলি করার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এই ঘটনায় কোনো বিজেপি কর্মীর ভূমিকা নেই। তিনি আরও বলেন, সিপিএম সমর্থকরাই এ কাজ করছে, যাতে বিজেপির উপর দায় চাপানো যায়, এবং সিপিএমের “চক্রান্তকারীদের” বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের দাবি জানান।