About Me

header ads

৩৭০ ধারা হঠানোর মানে দেশ থেকে জম্মু কাশ্মীরের মুক্তি: সাবধানবাণী উপত্যকার নেতাদের!

নির্বাচনী ইস্তাহারে বিজেপি ৩৭০ ধারা এবং ৩৫এ অবলুপ্তির কথা বলার একদিনের মধ্যেই তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিল জম্মু কাশ্মীরের মূল ধারার রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে। তাদের বক্তব্য, এর অর্থ ভারত থেকে জম্মু-কাশ্মীরের স্বাধীনতা।

“৩৭০ ধারা প্রসঙ্গে আমি বলে আসছি যে এই ধারাই ভারতের সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরকে বেঁধে রেখেছে। এই ধারা অবলুপ্ত করলেই জম্মু-কাশ্মীরের উপর ভারতীয় দখল বেআইনি হয়ে যাবে।” প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা পিডিপি সভানেত্রী মেহবুবা মুফতি এ কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে আরও বলেছেন, “আপনারা যদি জম্মু-কাশ্মীরকে ৩৭০ ধারামুক্ত করেন, তাহলে আপনারা দেশ থেকে জম্মু-কাশ্মীরকেও মুক্ত করে দেবেন।”

মুফতির অভিযোগ “বিজেপি আগুন নিয়ে খেলছে। জম্মু কাশ্মীর বিস্ফোরকের উপর বসে রয়েছে, যার ঝলক দেখা গেছে পুলওয়ামাতে। যদি বিজেপি এ ধরনের বিবৃতিদান থেকে নিরস্ত না হয়, যদি এ ধরনের উদ্দেশ্য থেকে বিজেপি নিরস্ত না হয়, তাহলে শুধু জম্মু-কাশ্মীর শুধু সারা দেশকেই নয়, গোটা এলাকাকেই ছাইয়ে পরিণত করে দেবে। তিনি বলেন, ফলে আমি বিজেপি-কে সাবধান করতে চাইছি। জম্মু-কাশ্মীর বিস্ফোরক। যদি এতে আগুন জ্বালান, তাহলে জম্মু-কাশ্মীরও থাকবে না, ভারতও থাকবে না। গোটা এলাকা জ্বলে যাবে।”

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স প্রধান ফারুক আবদুল্লা বলেন, ৩৭০ ধারা অবলুপ্ত হয়ে গেলে এ রাজ্যে দেশের পতাকা তোলার মত কেউই অবশিষ্ট থাকবে না।

তিনি বলেন, “ওরা ভাবে ওরা বাইরে থেকে লোক এনে এখানে বসাবে, আমাদের সংখ্যা কমাবে। আমরা কি ঘুমোব! ইনশাল্লা আমরা লড়াই করব। আমরা এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াব।”

ফারুক আবদুল্লার পুত্র এবং প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা টুইট করেছেন, “সম্প্রতি জম্মু কাশ্মীরের রাজ্যপাল দাবি করেছেন যে ৩৭০ ধারা ও ৩৫ এ নিয়ে কোনও আশঙ্কার কারণ নেই এবং আমাদের মত দলগুলি নির্বাচনে ভয় পাওয়ানোর জন্য এসব বলছি। আশা করি বিজেপিতে ওঁর সহকর্মীরা ওঁকে ইস্তাহারের কপি পাঠিয়েছেন।”

পিপলস কনফারেন্স সভাপতি সাজাদ লোন বলেছেন জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক ব্যবস্থার অবলুপ্তি ‘ভয়ানক’ হবে।

টুইটে তিনি বলেছেন, “৩৭০ এবং ৩৫ এ ধারা পবিত্র। এ নিয়ে যে কোনও আন্দোলন ক্ষয়ের সূত্রপাত ঘটাবে। এর অবলুপ্তি ঘটানোর অবিমৃশ্যকারী চিন্তাভাবনা বা বক্তব্য ভয়ানক হয়ে উঠবে।”