About Me

header ads

পূর্ব ত্রিপুরা আসনের ভোট গ্রহণ অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে : তরণী কান্ত

মঙ্গলবার পূর্ব ত্রিপুরা আসনের ভোট গ্রহণ করা হবে। এদিন সকাল ৭ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ভোট নেওয়া হবে ৩০ টি বিধানসভার ৬ টি জেলার ১৬৪৫ টি ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে। সকল ভোটার নির্ভয়ে এসে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করুন।

রবিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এই বিষয়ে জানান রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরণী কান্ত। ভোটারদের মনোবল বাড়ানোর জন্য রাজ্যে অতিরিক্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে। বিভিন্ন রাজ্য থেকে এই বাহিনী এসেছে। তাদের সর্বত্র মোতায়েন করা হয়েছে। কেউ ভোটারদের ভয় দেখালে কিংবা ভোট দানে বাধা দিলে তাদের বিরুদ্ধে করা ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সি আর পি এফ সর্বত্র মার্চ করবে। টি এস আর -এর সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। লাগু হয়েছে ১৪৪ ধারা। কেউ এই নিয়ম ভাঙ্গলে তৎক্ষনাত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রতিটি বুথে ওয়েভ কাস্টিং করা হবে। ভোটারেরা তাদের অধিকার প্রয়োগ করার পর নিজ বাড়িতে ফিরে যাবেন।

অযথা ভীড় না করার আহ্বান জানান রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরণী কান্ত।  বুথ অফিস ২০০ মিটার দূরে করতে হবে। সেই সমস্ত বুথ অফিসে এক টেবিল, দুটি চেয়ার ও একটি করে দলিয় পতাকা এবং ফেস্টুন রাখা যাবে। এর বেশী কিছু করা যাবেনা। এই বিষয়ে সমস্ত প্রার্থীদের  অবগত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।এই ভোটাধিকার প্রয়োগ প্রত্যেকের গনতান্ত্রিক অধিকার। কোন ভোটারকে হুমকি ও বাধা দান সঠিক কাজ নয়। কোন রাজনৈতিক দল বা তার প্রার্থী কেউ এটা করলে তা গনতন্ত্রের জন্য লজ্জার বলে জানান রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরণী কান্ত।

সিভিল , পুলিশ সেক্টর অফিসার এবং ফ্লাইং স্কোয়ার্ডকে পুরো দমে কাজে লাগানো হয়েছে। তারা নিজের থেকে করা ব্যবস্থা নেবে। সমাজ বিরোধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। বহিরাগতদের এলাকা ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভোটার শ্লিপের সঙ্গে ১১ টি নথীর যে কোন একটি  এনে ভোট দিতে পারা যাবে। পূর্ব ত্রিপুরা আসনের ভোট গ্রহণের মাধ্যমে রাজ্যের নাম উজ্জ্বল করার সুযোগ রয়েছে। তাকে কাজে লাগাতে ভোটার ও সমস্ত প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে আহ্বান জানান রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরণী কান্ত।  প্রত্যেক নির্বাচনী কাজে যুক্ত কর্মীরা নির্ভয়ে কাজ করে যাওয়ার বার্তা দেন তিনি। শান্তি পূর্ণ ভোট গ্রহণ করার জন্য সমস্ত রাজনৈতিক দলের কাছে আহ্বান জানান তিনি। কোন কিছুই লুকিয়ে থাকবে না বলে জানান তিনি। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। কাউকেই ছাড়া হবেনা বলে জানান রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক শ্রীরাম তরণী কান্ত।

স্ক্রুটিনি চলছে। আর ও এবং এ আর ও- এই স্ক্রুটিনি করছে বলে জানান তিনি। ৮০ শতাংশ বুথে সি আর পি এফ বাহিনী থাকবে বলে জানান তিনি। ১৬ টি কেন্দ্র থেকে ভোট গ্রহণ কর্মীরা সামগ্রী নিয়ে সোমবার রওয়ানা হবে।